IPL-এ অভিষেকের পর প্রথম দুই ম্যাচেই সেরা প্লেয়ারের পুরস্কার

IPL-এ অভিষেকের পর প্রথম দুই ম্যাচেই সেরা প্লেয়ারের পুরস্কার

 বয়স মাত্র ২১ বছর। আর তাতেই বল হাতে যেন আগুন ঝরাচ্ছেন নবীন ভারতীয় পেসার ময়াঙ্ক যাদব। চলতি আইপিএলেই অভিষেক হয়েছে তাঁর। লখনউ সুপার জায়ান্টস‌‌‌ দলের হয়ে তাদের শেষ ম্যাচে পঞ্জাব কিংসের বিরুদ্ধে অভিষেক হয় ময়াঙ্ক যাদবের।সেই ম্যাচেই অভিষেকে নজর কেড়েছিলেন তিনি। দুরন্ত গতিতে দলকে জয় এনে দিয়ে ম্যাচ সেরা হয়েছিলেন তিনি। সেই ফর্ম তিনি ধরে রাখলেন‌ তাঁর দ্বিতীয় আইপিএল ম্যাচেও। এবার তাঁর আগুনে গতিতে দিশেহারা হল আরসিবির ব্যাটাররা।তাও আবার চিন্নাস্বামী স্টেডিয়ামের ব্যাটিং সহায়ক উইকেটে।আর এই পারফরম্যান্স করেই ম‌্যাচ সেরা ও হয়েছেন তিনি। পাশাপাশি গড়ে ফেলেছেন ইতিহাস। যা গড়তে পারেননি তাবড় তাবড় ক্রিকেটাররা!

আইপিএলের দীর্ঘ ১৭ বছরের ইতিহাসে তিনিই প্রথম ক্রিকেটার যিনি আইপিএলে অভিষেক ম্যাচ এবং তার ঠিক পরের ম্যাচ অর্থাৎ পরপর দুই ম্যাচে ম্যাচ সেরার পুরস্কার জিতলেন! ময়াঙ্কের গতি নজর কেড়েছে সকলের। অনেকেই আবার তাঁকে উমরান মালিকের সঙ্গেও তুলনা করেছেন তাঁর ভয়াবহ গতির জন্য।এদিন বেঙ্গালুরুতে চিন্নাস্বামী স্টেডিয়ামে ব্যাটিং সহায়ক উইকেটে আরসিবিকে যেভাবে আটকে দিয়েছেন তিনি তা কুর্ণিশযোগ্য। বিরাট কোহলি,ফাফ ডু’প্লেসি,গ্লেন ম্যাক্সওয়েল সম্বলিত ব্যাটিং লাইন আপ দেখে একটু ও বিচলিত হননি তিনি। উল্টে বোলিংয়ে দেখিয়েছেন আরো জোশ।

মঙ্গলবার ম্যাচে ময়াঙ্ক বল করেছেন মাত্র চার ওভার। দিয়েছেন মোটে ১৪ রান। পাশাপাশি নিয়েছেন তিনটি উইকেট ও। অর্থাৎ রান কম খরচ করার পাশাপাশি তিনি উইকেট নিয়েছেন নিয়মিতভাবে। এদিন প্রথমে ব্যাট করে পাঁচ উইকেটে ১৮১ রান করেছিল লখনউ সুপার জায়ান্টস দল। জবাবে ১৫৩ রানেই অলআউট হয়ে যায় আরসিবি। দুই অজি ব্যাটার যারা পেস বোলিং সহায়ক পিচে খেলেই উঠে এসেছেন তাদেরকে ও এদিন ময়াঙ্ক যাদবের বিরুদ্ধে দিশাহারা মনে হয়েছে। গ্লেন ম্যাক্সওয়েল মাত্র দুই বলে শূন্য রান করে নিকোলাস পুরানের হাতে ক্যাচ দিয়ে আউট হন। ক্যামেরুন গ্রিনকে ৯ বলে ৯ রান করার পরে বোল্ড করে দেন ময়াঙ্ক। রজত পাতিদার ২১ বলে ২৯ রান করে ময়াঙ্ক যাদবের বলে দেবদূত পাডিক্কালের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফিরে যান।ফলে শেষ পর্যন্ত আরসিবির ডেরাতে এসে ২৮ রানে ম্যাচ জেতে কেএল রাহুলের লখনউ সুপার জায়ান্টস।

Sports