লকডাউনের জেরে দেশে সড়ক দুর্ঘটনায় প্রানহানি কমেছে ১২ হাজার

Two killed in road mishaps during lockdown- The New Indian Express
লকডাউনের কারণে মানুষের জীবন হ্যত স্তব্ধ হয়ে পড়েছে। কিন্তু এর একটা ইতবাচক দিকও ধরা পড়ছে এই সময়ে। যেমন রাস্তায় যানবাহন চলাচল কমে যাওয়ার ফলে  সড়ক দুর্ঘটনা হ্রাস পেয়েছে উল্লেখযোগ্য হারে। পরিসংখ্যান বলছে এরফলে ১২ হাজারের বেশি মানুষকে বাঁচানো সম্ভব হয়েছে সড়ক দুর্ঘটনা থেকে। সড়ক পরিবহন মন্ত্রকের মতে, সারাদেশে প্রতিদিন গড়ে প্রায় ৪১৫ জন মারা যায় এবং মাসে ১২,৪৫০ জন। তবে লকডাউন চলাকালীন, কেবল প্রয়োজনীয় পণ্য-বহনকারী যানগুলি রাস্তায় রয়েছে। সেভ লাইফ ফাউন্ডেশনের মতে, লকডাউন চলাকালীন এক মাসে সারা দেশে সড়ক দুর্ঘটনায় ১১৭ জন মারা গিয়েছিল, যার অর্থ এক মাসে মাত্র ১% এরও বেশি লোক প্রাণ হারিয়েছে।
road accidents: Indian roads: Fatalities in mishaps high despite ...
এই সংখ্যাটি আরও কম হত তবে কয়েকটি রাজ্যে লকডাউন শুরু হওয়ার পরে ঘরমুখী পরিযায়ী শ্রমিকরা যানবাহনে ধাক্কা খেয়ে বা অন্য কোনও কারণে সড়ক দুর্ঘটনায় প্রাণ হারিয়েছেন। সেফ লাইফ ফাউন্ডেশনের সেক্রেটারি পীযূষ তিওয়ারি বলেছেন, পথ দুর্ঘটনার যে ঘটনাগুলি পুলিশের রিপোর্টে রয়েছে, কেবল সেগুলিকেই ধরা হয়েছে। ফাউন্ডেশনের সমীক্ষা অনু্যায়ী, লকডাউনের সময়ে রাস্তা খালি থাকায়, প্রয়োজনীয় পণ্যবাহী যানবাহনের চালকরা দ্রুত গতিতে গাড়ি চালাচ্ছেন, যার ফলে দুর্ঘটনা ঘটছে। এই সময়ের মধ্যে সবথেকে বেশি সড়ক দুর্ঘটনায় মৃত্যু ঘটেছে পাঞ্জাবে। সেখানে সাধারণ সময়ে পথ দুর্ঘটনায় মাসিক গড় মৃত্যু সংখ্যা ছিল ৩৯০। কিন্তু লকডাউনে তা কমে ৪৩ হয়েছে। আর সড়ক দুর্ঘটনায় মৃত্যুহার সবথেকে বেশি ছিল উত্তরপ্রদেশে। সেখানে সাধারণ সময়ে মাসে গড়ে ১৮৩০ জন মারা গেলেও লকডাউনের সময়ে এক মাসে মৃত্যু হয়েছে মাত্র ৬ জনের। 
4 Gujarat workers returning home after lockdown killed in accident ...
এ ছাড়া লকডাউনের সময় আসাম, তামিলনাড়ু, কেরল, দিল্লি, নাগাল্যান্ড, জম্মু কাশ্মীর, অন্ধ্র প্রদেশ, তেলেঙ্গানা, কর্ণাটক এবং পশ্চিমবঙ্গে মৃত্যুর পরিসংখ্যান রেকর্ড করা হয়েছিল।

Loading...

No comments

Powered by Blogger.