তৈরি হল মানুষের অনুভূতির ম্যাপ!


রাগ হলে খুব মাথা গরম হয়ে যায় অনেকের। খুশির কোনো ঘটনা ঘটলে সারা শরীর ফুরফুরে হয়ে ওঠে। ভালবাসার মানুষটিকে দেখলে বুকের ভেতর কেমন একটা উষ্ণতা ছড়িয়ে পড়ে। শিক্ষাক্ষেত্রে বা কর্মক্ষেত্রে পরীক্ষা দিতে গেলে ঘেমে যায় হাতের তালু। এটা শুধু আপনার শরীরেই নয়, সারা পৃথিবীর মানুষের শরীরেই ঘটে। বিভিন্ন অনুভুতির সাথে সাথে আমাদের শরীরে বিভিন্ন পরিবর্তন আসে। এসব পরিবর্তন এখন পুঙ্খানুপুঙ্খভাবে বিশ্লেষণ এবং গবেষণা করা সম্ভব হবে। কারণ মানুষের শরীরের কোন কোন স্থানে এসব অনুভূতি প্রভাব ফেলে তার একটি অ্যাটলাস বা ম্যাপ তৈরি করে ফেলেছেন বিজ্ঞানীরা। Proceedings of the National Academy of Sciences জার্নালে প্রকাশিত হয় এই তথ্য।
ফিনল্যান্ড, সুইডেন এবং তাইওয়ানের সাতশোর বেশি মানুষ অংশ নেয় এই গবেষণায়। তাদেরকে দেখানো হয় অনুভূতি প্রকাশের বিভিন্ন শব্দ, বিভিন্ন ভিডিও যা দেখে তারা আবেগাপ্লুত হয়ে পড়েন, অথবা এমনই কিছু গল্প। এরপর তাদের শরীরের কোন অংশে অন্যরকম অনুভূতি হচ্ছে সেটা জেনে নেওয়া হয়। শরীরের কিছু অংশ বেশি সংবেদনশীল হয়, কিছু অংশে আবার অনুভূতি কমে যায়। এ অনুযায়ী শরীরের বিভিন্ন অংশে অনুভূতির ওঠানামা চিহ্নিত করা হয়।এ থেকে গবেষকেরা দেখেন, বিভিন্ন অনুভূতির সাথে জড়িত আছে শরীরের বিভিন্ন এলাকা। ভালবাসা, আনন্দ এবং ঘৃণা ইত্যাদি অনুভূতির ক্ষেত্রে জাতীয়তা নির্বিশেষে একই ফলাফল পাওয়া যায়। বিভিন্ন দেশের ভাষায় আবার এসব অনুভূতির সাথে জড়িত প্রবাদ এবং ধারণা আছে। আমাদের দেশে যেমন রাগে মাথা গরম হয়ে যাওয়ার ধারনাটা স্বাভাবিক, তেমনি আবার ইংরেজি ভাষায় ভয়ের অনুভূতি বোঝাতে বলা হয় “cold feet”। এই ভাষার প্রভাব যেন গবেষণায় না পড়ে তার জন্য অনেক সতর্ক থাকা হয়। তার পরেও দেখা যায়, ভয় পাওয়া অবস্থায় আসলেও মানুষের পায়ের দিকে অনুভূতি কমে যায়।
একেকটি অনুভূতির জন্য শরীরের একেকটি অঞ্চল সংবেদনশীল হলেও কিছু কিছু ক্ষেত্রে দেখা যায়, এসব অনুভূতির ওভারল্যাপ ঘটে। অর্থাৎ, কয়েকটি অনুভূতির জন্য শরীরের একই অঞ্চলে উদ্দীপনা দেখা যায়। যেমন ধরুন, ভয় এবং রাগের মত দুইটি নেতিবাচক অনুভূতির জন্যেই বুকের ওপরের দিকে বেশি সংবেদনশীলতা দেখা দেয়। দুই ক্ষেত্রেই শ্বাস-প্রশ্বাস এবং পালস রেট বেড়ে যাবার কারণে এটা দেখা যায়। খুশি বা হ্যাপিনেস হল একমাত্র অনুভূতি যার প্রভাব দেখা যায় সারা শরীর জুড়ে।
এমন একটি গবেষণার কথা শুনতে অনেক মজা লাগলেও এর কোনও উপকারিতা আছে কি? আছে তো বটেই! অনুভূতির সাথে জড়িত মনস্তাত্ত্বিক যেসব রোগ রয়েছে, সেগুলো সারিয়ে তোলাটা বেশ কষ্টসাধ্য। এই গবেষণার মাধ্যমে সেসব রোগের কার্যকর প্রতিকার খোঁজার ক্ষেত্রে অগ্রগতি আনা যাবে বলে আশা করছেন তারা।
Loading...

No comments

Powered by Blogger.