রায়গঞ্জ শহরের যমরাজের পর এবার গব্বর সিংক হাজির



রায়গঞ্জ শহরের যমরাজের পর এবার গব্বর সিংক হাজির 


দেশজুড়ে ভয়ঙ্কর করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ আটকাতে এখন লকডাউন চলচ্ছে।  কেন্দ্রীয় সরকার এবং রাজ্য সরকার লকডাউনের মধ্যে সবাই কে ঘরে থাকতে অনুরোধ করছেন এবং জরুরী কাজে ঘর থেকে বাইরে বের হলে সবাইকে মাস্ক পরে সামাজিক দুরত্ব বজায় রেখে চলতে হবে। কিন্তু বেশ কিছু মানুষ সরকারী নিয়ম এখনো পর্যন্ত মানছে না। এই পরিস্থিতিতে করোনা সংক্রমণ রুখতে উত্তর দিনাজপুর জেলার রায়গঞ্জ শহরের রাস্তায় 'শোলের' গব্বর সিং তার দল নিয়ে নেমে পড়েছে রাস্তায় । করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ রুখতে স্যোসাল ডিস্ট্যানসিং, বাড়িতে থাকা, মাস্ক পরে বাড়ি থেকে বের হওয়া ইত্যাদি বিভিন্নরকম সচেতনতা মেনে চলতে লকডাউনের প্রথমদিন থেকেই পুলিশ প্রশাসন, স্বাস্থ্যদপ্তর, পুরসভা সাধারণ মানুষকে আবেদন করে আসছেন। এরপরেও একশ্রেণির মানুষের চেতনা আসেনি। এখনও কিছু মানুষ বিভিন্ন অজুহাতে বাইরে বেড়িয়ে পড়ছেন।



রায়গঞ্জ শহরের রাস্তায় এই সচেতনতার কাজের দায়িত্বে স্বয়ং যমরাজকে দেখা গিয়েছিল। তাতেও পুরোপুরি মানুষের বাইরে বেরোনো আটকানো যায় নি। শেষমেশ গব্বর সিংকেই এই দায়িত্ব নিতে হয়েছে মানুষকে সচেতন করার। এদিন সকালে পুলিশের পক্ষ থেকে রায়গঞ্জ পুরসভার কর্মীদের সংবর্ধনাজ্ঞ্যাপন একটি অনুষ্ঠানের মাঝে গব্বর সিং তার দল নিয়ে এসে হঠাৎ করে হাজির হয়।


গব্বর সিং তার অনুচরের কাছে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ রুখতে সরকার নির্দেশিত নিয়মগুলির সম্পর্কে জানতে চান। তা জানার পরেই সেখানে উপস্থিত লোকজন স্যোসাল ডিস্ট্যানসিং মেনে রয়েছে কি না তা যাচাই করে।এরপরে জনতার উদ্দ্যেশ্যে গব্বর সিং মানুষকে সচেতন করার উদ্দ্যেশ্যে সরকার নির্দেশিত নিয়মগুলো নিজের স্টাইলে জানিয়ে দেন। রায়গঞ্জ শহরের ত্রিবেনী নাট্য সংস্থা পুলিশ প্রশাসনের সাহায্যে শহরের মানুষকে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ রুখতে অভিনব এই উদ্যোগ নিয়েছে। শহরের আপামর মানুষ এই উদ্যোগকে উপভোগ করার পাশাপাশি তাদের সাধুবাদ জানিয়েছেন। আবার বেশ কিছু মানুষ মনে করছেন সামাজিক দুরত্ব বজায় না রেখে এই রকম ভির করে নাটক দেখতে এসে লকডাউনের নিয়ম কি সঠিক ভাবে মানা হচ্ছে ? এতে আবার করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ ছড়িয়ে না পরে।


Loading...

No comments

Powered by Blogger.