মুখ্যমন্ত্রীর রাজস্থান থেকে ছাত্রদের ফিরিয়ে আনার আশ্বাস



মুখ্যমন্ত্রীর রাজস্থান থেকে ছাত্রদের ফিরিয়ে আনার আশ্বাস 


করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ আটকাতে সারা দেশে ৩ মে পর্যন্ত লকডাউন ঘোষনা করেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। এই পরিস্থিতিতে উচ্চশিক্ষা নিতে রাজস্থানে কোটায় গিয়ে চরম বিপাকে পড়েছেন উত্তর দিনাজপুর জেলার ৭৪ জন ছাত্র। সন্তানদের ফিরিয়ে আনার জন্য মুখ্যমন্ত্রীর কাছে অবিভাবকদের কাতর আবেদন।একদিকে মুখ্যমন্ত্রী টুইট করে রাজস্থানে কোটা থেকে ছাত্রদের ফিরিয়ে আনার আশ্বাস দিয়েছেন। ফলে বাবা মায়ের দুশচিন্তা দূর হয়ে জেগেছে আশার আলো।



উত্তর দিনাজপুর জেলা থেকে কেউ ডাক্তারি আবার কেউ ইঞ্জিনিয়ারিং পড়তে রাজস্থানে কোটায় গিয়েছিলেন। গত ২৯ মার্চ পড়া শেষ করে বাড়িতে ফেরার কথা ছিল। কিন্তু সব উলোপালোট হয়ে গেল করোনা ভাইরাসের থাবা। গত ২০ মার্চ থেকে শুরু হয়েছে লকডাউন পিরিয়ড। লকডাউন পিরিয়ডে যান চলাচল বন্ধ হয়ে গেছে। উত্তর দিনাজপুর জেলার কালিয়াগঞ্জের উত্তর চিড়াইল পাড়ার বাসিন্দা দেবব্রত দত্তের এক মাত্র সন্তান দেবজিৎ দত্তকেও উচ্চ শিক্ষালাভের জন্য রাজস্থানের কোটায় ভর্ত্তি করেছিলেন।দেবব্রতবাবু কালিয়াগঞ্জে সারের ব্যবসা করেন। সেই আয় থেকেই ছেলেকে বড় করার স্বপ্ন দেখছিলেন। দেশ জুড়ে লকডাউনে সেই স্বপ্নে বড়সড় আঘাত এসেছে।



দীর্ঘ লকডাউনে দেশের বিভিন্ন রাজ্যের ছাএদের রাজ্য সরকার থেকে সরকারিভাবে উদ্যোগ গ্রহন করে সেই রাজ্যের ছাত্রদের কোটা থেকে বাড়িতে ফিরিয়ে নিয়ে গেছে। পড়ে রয়েছে শুধুমাত্র পশ্চিমবঙ্গের ছাত্ররা। বিশাল হোষ্টেলে দেবব্রতবাবুর একমাত্র সন্তান একা  রয়েছে। বাকিরা বিভিন্ন জায়গায় রয়েছেন। বাবা মায়ের কাছে সন্তানের একটাই আবদার কবে তাদের বাড়িতে ফিরিয়ে নিয়ে যাওয়া হবে ?  বাবা মা সন্তানকে কোনভাবেই আশ্বস্ত করতে পারছে না। আজ সন্তানদের ফিরিয়ে আনার দাবিতে উত্তরদিনাজপুর জেলা শাসকের দ্বারস্থ হয়েছিলেন অবিভাবকরা।একদিকে মুখ্যমন্ত্রী টুইট করে রাজস্থানে কোটা থেকে ছাত্রদের ফিরিয়ে আনার আশ্বাস দিয়েছেন। কবে তাদের ফিরিয়ে আনবেন তার কোন দিনক্ষন ঘোষনা করেন নি। হোষ্টেলে একদিন পার করাই তাদের পক্ষ  দুস্কর হয়ে পড়েছে। ফলে সন্তানের অবিভাবকদের নাওয়া খাওয়া ভুলে সরকারের দিকে তাকিয়ে আছেন সরকার কবে ফিরিয়ে আনবেন  সন্তানদের।


Loading...

No comments

Powered by Blogger.