শাশ্বত-ঋতুপর্ণা থাকলেও কত নম্বর দেবেন পার্সেল ছবিকে?

Image result for parcel saswata rituparna

গত ১৩ই মার্চ মুক্তি পায় একটি স্বাধীন ছবি, নাম পার্সেল। লিড কাস্ট এ ছিলেন শাশ্বত চট্টোপাধ্যায় ও ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত এবং পাশাপাশি অভিনয় করেছেন অনিন্দ্য চ্যাটার্জী, শ্রীলা মজুমদার, অম্বরিশ ভট্টাচার্য্য। ছবির পরিচালক ইন্দ্রাশিস আচার্য্য। ছবিটির ট্রেইলার দেখে এই ছবিটি কেউ নাকোচ করতে পারবে না, সে যতই কম বাজেটের ফিল্ম হোক না কেনো। মনে হবে এখানে একটি সম্পর্কের কথা বলা হবে, এবং থাকবে থ্রিল, যেখানে প্রশ্ন উঠবে কে রোজ পার্সেল গুলো পাঠাচ্ছে, তার উদ্দেশ্য কি তা নিয়ে। 
 Image result for parcel saswata rituparna
গল্পে দেখানো হয়েছে  দুজন ডাক্তারকে, স্বামী স্ত্রী, একজন শাশ্বত, একজন ঋতুপর্ণা। এবার এখানে অনেকগুলো দিক আছে। দুজনেরই কিছু অতীত রয়েছে, রয়েছে গোপন কিছু কথা।  সেগুলো কি বর্তমানে টেনে আনা খুব দরকারি ? সেটা তাদেরই বক্তব্য, আবার ঋতুপর্ণার জন্মদিনের দিন থেকে একজন রোজ একটা করে পার্সেল পাঠাচ্ছে, কিন্তু তাতে সেন্ডার এর নাম নেই, কে পাঠাচ্ছে, কেনোই বা পাঠাচ্ছে, কি তার উদ্দেশ্য, কেনোই বা রোজ টাকা খরচ করে পার্সেল পাঠাচ্ছে, এই সব প্রশ্নের উত্তর পাওয়া যাবে এই ছবি টি দেখার পর। 

Image result for parcel saswata rituparna
 
ছবিতে যদি অভিনয় নিয়ে কথা বলা হয়, তাহলে বলাই যায়, প্রত্যেকের অভিনয়ই ভালো হয়েছে, সে শাশ্বত হোক, কিংবা ঋতুপর্ণা কিংবা অম্বরিশ, প্রত্যেকে নিজের জায়গায় তাদের পুরোটা দিয়েছেন। এতো ডিটেইলস এ কাজ করেছেন, সেখানে তাদের আর কিছু বলার থাকে না। বিশেষ করে শাশ্বত ও ঋতুপর্ণা অসাধারণ কাজ করেছেন, আর সেটাই এক্সপেকটেড। 

 Image result for parcel saswata rituparna

ক্যামেরার কাজও বেশ ভালো লাগবে, পার্সপেক্টিভ বোঝানোর জন্য শেকিনেস বা নড়বড়ে ক্যামেরার কাজও অসাধারণ ভাবে ফুটে উঠবে। আর ছবির কালার, এডিটিং, ব্যাক গ্রাউন্ড স্কোর ও ক্যামেরার কাজে আলাদাই একটা ফীল পাওয়া যাবে ছবিতে। পরিচালক খুব সুন্দর ভাবে চরিত্র গুলোকেও তুলে ধরেছেন ছবিতে। তবে পরিচালনার প্রথম ও শেষ ভালো হলেও মাঝে কোথাও হারিয়ে যাবে সেই ধারাবাহিকতা। আগেই যেটা বলা হয়েছে, যে এতো ডিটেইলস, ওইটাই যেনো কোথাও একটা বোর করবে দর্শক কে, যতটা বিষয় ছবির গল্পে রয়েছে, সেটা হয়ত আরো কম সময়ে দেখানো যেতে পারতো, কিন্তু পরিচালক টা করেননি। ফলে ছবির বিশাল ডিউরেশনের জন্যেও দর্শক হতে পারে বোর। স্ক্রিনপ্লে এর দিকে একটু নজর দিলে বা স্ক্রিনপ্লে একটু টান টান করতে পারলে হোয়ত এরকম হতো না। এটি একটি এভারেজ ফিল্ম, কিন্তু কনসেপ্ট খুবই ভালো। তবে আরো ভালো করা যেতে পারতো। পারফরম্যান্স সবার ভালো হলেও প্লট, সাব প্লট, স্ক্রীন প্লে, এক্সিকিউশন এইসবে হারিয়ে যাচ্ছে এই ছবি।
Loading...

No comments

Powered by Blogger.