চিনকে টপকে করোনা আক্রান্তের সংখ্যায় শীর্ষে পৌঁছল আমেরিকা

How to Stop the Coronavirus from Destroying America | The National ...

একদিন আগেও করোনা আক্রান্তের সংখ্যায় আমেরিকা ছিল তালিকার তৃতীয় স্থানে। কিন্তু একদিনেই দেখতে দেখতে শীর্ষস্থানে পৌঁছে গেল ট্রাম্পের দেশ। চিন ইতালিকে টপকে করোনা আক্রান্তে আমেরিকা এখন সবার ওপরে। মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৮৩ হাজার ১১৩ জন, গত ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে নতুন রোগী শনাক্ত হয়েছেন প্রায় ১৫ হাজার। যুক্তরাষ্ট্রে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ১৭১ জন। এই নিয়ে সেখানে মোট প্রাণহানির সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১ হাজার ১৯৮ জন। এপর্যন্ত ১ হাজার ৮৬৪ জন রোগী সুস্থ হয়ে হাসপাতাল ছেড়েছেন। এখনও চিকিৎসাধীন ৮০ হাজারের বেশি। এদের মধ্যে অন্তত ২ হাজার ১১২ জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে জানা গেছে।

Coronavirus and Health Care in America

যুক্তরাষ্ট্রে করোনা আক্রান্তদের প্রায় অর্ধেকই নিউ ইয়র্কে। অঙ্গরাজ্যটি প্রায় ৪০ হাজার মানুষের শরীরে প্রাণঘাতী এই ভাইরাস ধরা পড়েছে। আক্রান্তের সংখ্যার দিক থেকে যুক্তরাষ্ট্রের পরেই রয়েছে চিন। করোনার উৎস দেশটিতে গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন সংক্রমণের খবর পাওয়া যায়নি। ফলে সেখানে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৮১ হাজার ২৮৫ জনই রয়েছে, আর মৃতের সংখ্যা ৩ হাজার ২৮৭ জন।

China Is Blaming the United States for the Coronavirus

চিনের উহান থেকে যখন গোটা বিশ্বে থাবা বসাতে শুরু করেছিল করোনাভাইরাস, তখন কার্যত মারণ ভাইরাসকে নিয়ে রসিকতা করতেই বেশি ব্যস্ত ছিলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট। বিশেষজ্ঞদের সতর্কতা গুরুত্ব দেন নি। অথচ কিভাবে আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছিল তা রেখচিত্র (গ্রাফ) লক্ষ্য করলেই বোঝা যাবে। গত ৭ মার্চ দেশটিতে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ছিল ৪৩৫ জন। পরের দিন ৮ মার্চ তা বেড়ে হয় ৫৪১ জন। তার পরের দিন অর্থা‍ৎ ৯ মার্চ আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয় ৭০৪ জন। ১১ মার্চ সেই সংখ্যা বেড়ে হয় ১৩০০ জন। গত  বুধবার দেশে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়ায় ৬৮,২১১ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে আক্রান্ত হন ১৫ হাজারের মত। ফলে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৮৩ হাজার ১১৩ জন।
Loading...

No comments

Powered by Blogger.