রায়গঞ্জ বসন্ত উৎসব ষোলোতম বছরে পদার্পন করলো



রায়গঞ্জ বসন্ত উৎসব ষোলোতম বছরে পদার্পন করলো



"মধুর বসন্ত এসেছে, মধুর মিলন ঘটাতে হলুদ রঙের শাড়ি আর লাল পলাশের আগুন রঙে প্রকৃতির পাশাপাশি মানব মনেও নানান রঙের অনুভূতির মিশেল বর্নময় হয়ে ওঠে। এবছর উত্তর দিনাজপুর জেলার  রায়গঞ্জ বসন্ত উৎসব ষোলোতম বছরে পদার্পন করলো। উৎসব উপলক্ষে এদিন একটি বর্নাঢ্য শোভাযাত্রা শহরের পথ পরিক্রমা করে। রায়গঞ্জ শিলিগুড়ি মোড় থেকে এক বর্নাঢ্য শোভাযাত্রার মধ্যে দিয়ে শুরু হয় এবারের বসন্ত উৎসব।



শহরের দুপ্রান্ত থেকে দুটি শোভাযাত্রা মিলিত হলো রায়গঞ্জ করোনেশন হাইস্কুল প্রাঙ্গণে। কয়েকশো শিল্পীর সঙ্গীত ও নৃত্যানুষ্ঠানে বসন্তের রঙিম উন্মাদনায় ছুঁয়ে গেল প্রতিটি মানুষের মন ও প্রান। রায়গঞ্জ বসন্ত উৎসবে অংশ নিলেন রায়গঞ্জের বিধায়ক মোহিত সেনগুপ্ত, রায়গঞ্জ পৌরসভার পৌরপতি সন্দীপ বিশ্বাস ও রায়গঞ্জ পৌরসভার উপ-পৌরপতি অরিন্দম সরকার সহ অন্যান্য ব্যাক্তিরা। একে অপরকে আবীরের ছোঁয়ায় রাঙিয়ে চললো উষ্ণ আলিঙ্গন।


রায়গঞ্জ শহরের প্রখ্যাত চিকিৎসক ডাঃ জয়ন্ত ভট্টাচার্যের তত্বাবধানে ও পরিচালনায় পূর্নতা পেল রায়গঞ্জ বসন্ত উৎসব কমিটির ষোলতম বসন্ত উৎসব। তবে করোনা ভাইরাস নিয়ে বাড়তি সচেতনতার কারনে এই উৎসবে ব্রাত্য ছিল আবীর খেলা। জয়ন্ত বাবু বলেন," আমাদের এখানে করোনা ভাইরাস নিয়ে আতঙ্ক হওয়ার কোন কারন নেই। কিন্তু বাড়তি সতর্কতা হিসাবে যাতে ঠান্ডা না লাগে সেজন্য আবীর খেলা এই উৎসবে এবারে বন্ধ রাখা হয়েছে। কিন্তু তাস্বত্বেও উৎসব প্রানবন্ত হয়ে উঠেছে সকলের অংশগ্রহনে।      




     
Loading...

No comments

Powered by Blogger.