করোনা ভাইরাস নিশ্বাসপ্রশ্বাস বাহিত ভাইরাস : WHO


করোনা ভাইরাস নিশ্বাসপ্রশ্বাস বাহিত ভাইরাস : WHO 



গোটা বিশ্বের পাশাপাশি ভারতে লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা। প্রথমদিকে এই মারণ ভাইরাস একটি কোল্ড ভাইরাস হিসেবে পরিচিত হলেও গরম এবং আদ্র জায়গায়তেও ট্রান্সমিশন হতে পারে COVID-19-এর, এমনটাই জানাচ্ছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা সাফ জানিয়েছে, সাধারণ মানুষকে যথেষ্ট সতর্কতামূলক ব্যবস্থা নিতে হবে এবং করোনা আক্রান্ত হয়েছে এমন জায়গায় ট্র্যাভেল করতে নিষেধ করা হয়েছে। পাশাপাশি, করোনা ভাইরাস থেকে নিজেকে বাঁচাতে বারবার হাত ধোয়া অভ্যাস করা প্রয়োজন যাতে তা দ্রুত চোখে, মুখে এবং নাকের মাধ্যমে সংক্রমণ না ঘটাতে পারে।



ঠাণ্ডা হাওয়া এবং বরফ নতুন করোনা ভাইরাসকে মেরে ফেলতে পারবে না। কোনও গবেষণা এখনও তা প্রমাণ করতে পারেনি। মানুষের দেহের স্বাভাবিক উষ্ণতায় ৯৭.৭ ডিগ্রি ফারেনহাইট থেকে ৯৮.৬ ডিগ্রি ফারেনহাইট থাকা উচিত। পাশাপাশি এও বলা হয়েছে, সাবান দিয়ে কিছুক্ষণ অন্তর অন্তর হাত ধোয়া প্রয়োজন অথবা বেশি অ্যালকোহলযুক্ত স্যানিটাইজার ব্যবহার করে হাত পরিষ্কার করা দরকার। গরম জলে স্নান করলেও নতুন করোনা ভাইরাস প্রতিরোধ সম্ভব না। গরম জলে স্নান করলেও কোভিড ১৯ করোনা ভাইরাস থেকে আপনি নিরাপদ নন, এমন টাই জানাচ্ছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। স্নানের উপর মানুষের দেহের স্বাভাবিক উষ্ণতা নির্ভর করে না। কিছু গবেষণা জানিয়েছে অতিরিক্ত গরম জলে স্নান করলে তা ভীষণ ক্ষতিকারক এবং ত্বককে পুড়িয়ে দিতে পারে সহজে।

মশার কামড়ে করোনা ভাইরাস কোভিড ১৯ ট্রান্সমিশন হয় না। এখনও অবধি কোনও প্রমাণ পাওয়া যায়নি যেখানে মশাবাহিত হয়ে করোনা সংক্রমণ হয়েছে। করোনা ভাইরাস একটি নিশ্বাসপ্রশ্বাস বাহিত ভাইরাস যা মূলত হাঁচি, কাশি কিংবা হাঁচি-কাশির জল থেকে সংক্রমণ ঘটতে পারে।
Loading...

No comments

Powered by Blogger.