আগামী ১৪ই এপ্রিল পর্যন্ত মিলবে না ট্রেন পরিষেবা


আগামী ১৪ই এপ্রিল পর্যন্ত মিলবে না ট্রেন পরিষেবা


দেশের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী গত রবিবার ২২শে মার্চ জনতা কারফিউ চলাকালীন ঘোষণা করেন ৩১ মার্চ পর্যন্ত দেশের সমস্ত প্যাসেঞ্জার ট্রেন বাতিল করা হয়েছে। প্রথমে ঘোষণা করা হয়েছিল ৩১ মার্চ পর্যন্ত বন্ধ থাকবে রেল পরিষেবা। কিন্তু করোনা রুখতে এবার আরও কঠোর মোদী সরকার। বাড়ানো হল রেলের লকডাউনের সময়সীমা। আগামী ১৪ই এপ্রিল পর্যন্ত মিলবে না ট্রেন পরিষেবা। অর্থাৎ আপাতত দেশজুড়ে লকডাউন চলা পর্যন্ত চলবে না রেল।রেলের তরফে জানানো হয়েছে যে ১৪ এপ্রিল পর্যন্ত মেল, এক্সপ্রেস ও প্যাসেঞ্জার সমস্ত ট্রেন বন্ধ থাকবে ৷ দেশে নিত্যদিন করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বৃদ্ধি পাওয়াতেই এই কঠোর পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছে। তবে রেলের তরফে জানানো হয়েছে, মালগাড়ির পরিষেবা চলবে ৷ জরুরি জিনিস ও বস্তু সরবরাহ নিশ্চিত করার জন্য মালগাড়ি চালানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে জানা গিয়েছে।



রেল লকডাউন হওয়াতে বিরাট ক্ষতির মুখে পড়েছে ভারতীয় রেল। জানা গিয়েছে শুধু এ মাসেই ক্ষতি হয়েছে ১৪২১ কোটি টাকা। যা সর্বকালের রেকর্ড। তবে এই মুহূর্তে যাবতীয় লোকসানের চিন্তা দূরে রেখে করোনা ঠাকানোই মূল লক্ষ্য হয়ে উঠেছে দেশের কাছে, সে কারণে রেলের লকডাউনের সময়সীমা বাড়িয়ে করা হয়েছে ১৪ এপ্রিল।প্রসঙ্গত, গত রবিবার জনতা কারফিউ চলাকালীন ৩১ মার্চ পর্যন্ত দেশের সমস্ত প্যাসেঞ্জার ট্রেন বাতিল বলে ঘোষণা করেছিল রেল মন্ত্রক। প্রাথমিক ভাবে চোখে আঁধার দেখেছিল মানুষ। পরে অবশ্য পরিস্থিতি বুঝে এই সিদ্ধান্তকে দেশব্যাপী সমর্থন জানান সাধারণ মানুষ। হাজার অসুবিধা হলেও করোনা রুখতে বদ্ধ পরিকর ভারতবাসী।  
Loading...

No comments

Powered by Blogger.