১০৮ মেগাপিক্সেলের ৫ ক্যামেরা ফোন আনল শাওমি!


স্মার্টফোন এখন আর কেবল ফোনের ব্যবহারেই সীমাবদ্ধ নেই। স্মার্টফোন কখনো হয়ে যাচ্ছে গেমিং মেশিন আবার কখনো বা থ্রিডি ক্যামেরা। 
বর্তমানে স্মার্টফোনের অন্যতম বিশেষ ফিচার ক্যামেরা। ক্যামেরা ছাড়া স্মার্টফোন রীতিমতো কল্পনাতীত।
বর্তমান বাজারে এখন সব কোম্পানিই তাদের ডিভাইস গুলোকে ক্যামেরার দিক থেকে অনেক এগিয়ে রাখছে সেই সাথে প্রতিনিয়ত ক্যামেরার উন্নতিও সাধন করে চলছে। এক্ষেত্রে এন্ড্রোয়েড প্লাটফর্মে সবচেয়ে হাই রেজুলেশনের ক্যামেরা ছিলো ৬৪ মেগাপিক্সেল ইমেজ সেন্সর। কিন্তু সবাইকে পিছনে ফেলতে নিয়ে শাওমি নিয়ে এসেছে ১০৮ মেগাপিক্সেলের ইমেজ সেন্সর।
“ড্রিম বিগ, শুট এপিক’ এই স্লোগান নিয়ে শাওমি ২০১৯ সালের সেপ্টেম্বর মাসে বাজারে ছেড়েছে নোট টেন ও নোট টেন প্রো। দুটো ফোনই এক, পার্থক্য কেবল র‍্যাম আর স্টোরেজে।
ফোনটিতে চিপসেট হিসাবে ব্যবহার করা হয়েছে স্ন্যাপড্রাগন ৭৩০জি। (SDM730G)। আট কোরের প্রসেসর যা ২.২ গিগা হার্জ পর্যন্ত স্পীডআপ করবে। এমআইইউআই প্ল্যাটফর্মের সাথে অপারেটিং সিস্টেম থাকছে এন্ড্রোয়েড ৯.০ পাই। গ্রাফিক্স কার্ড হিসাবে ব্যবহার করা হয়েছে এড্রিনো ৬১৮।
ফোনটির র‌্যাম ছয় জিবি ডিডিআর ফোর, থাকছে না কোনো মেমোরি কার্ড স্লট। ইন্টার্নাল স্টোরেজ দেয়া হয়েছে ১২৮ জিবি। নোট টেন প্রো তে দেওয়া হয়েছে আট জিবি ডিডিআর ফোর র্যাম আর ২৫৬ জিবি ইন্টার্নাল স্টোরেজ।
নোট টেনের ডিসপ্লে ৬.৪৭ ইঞ্চির থ্রিডি কার্ভড এমোলেড স্ক্রীন। চোখের সুরক্ষার জন্য দেয়া হয়েছে ব্লু লাইট ফিল্টার। টাচ প্যানেলের সুরক্ষার জন্য ব্যবহার করা হয়েছে কর্নিং গরিলা গ্লাস ফাইভ।
যেহেতু এটি একটি ক্যামেরা নির্ভর ফোন সেহেতু বর্তমান বাজারের সবচেয়ে হাই রেজুলেশনের ক্যামেরা দেয়া হয়েছে এতে, অন্যান্য ফোন যেখানে ৬৪ মেগাপিক্সেল পর্যন্ত ইমেজ সেন্সর বা ৪ লেন্সের ক্যামেরা দিচ্ছে সেখানে শাওমি দিচ্ছে ১০৮ মেগাপিক্সেলের প্রাইমারি ক্যামেরা সহ পাঁচটি ক্যামেরা। লেন্স ও সেন্সর ব্যবহার করা হয়েছে স্যামসাং এর। পিছনে আরো থাকছে ১২ মেগাপিক্সেলের পোট্রেট ক্যামেরা, ২০ মেগাপিক্সেল ওয়াইড এঙ্গেল ক্যামেরা, ৫ মেগাপিক্সেল আল্ট্রা টেলিফটো ক্যামেরা এবং ২ মেগাপিক্সেলের ম্যাক্রো ক্যামেরা। ফ্রন্ট ক্যামেরা হিসাবে থাকছে ৩২ মেগাপিক্সেল ইমেজ সেন্সর।
ফোনটির সিম কার্ড স্লট দুইটি। দুটি স্লট একইসাথে ফোর জি সাপোর্টেড এবং ন্যানো সিম স্লট। এর ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সরটি ডিসপ্লের নিচে দেয়া হয়েছে।
৫২৬০ মিলিএম্পিয়ারের দীর্ঘস্থায়ী ব্যাটারির সাথে থাকছে ত্রিশ ওয়াট কিউসি ৪এর ফার্স্ট চার্জিং সাপোর্ট। এই ফোনটির চার্জিং পোর্ট টাইপ সি। অডিও আউটপুট হিসাবে ৩.৫মিলিমিটার জ্যাক তো থাকছেই।
ফোনটির আকৃতি মোটামুটি বড়ই বলা যায়। ফোনটি লম্বায় ৬.২১ ইঞ্চি এবং প্রস্থে প্রায় তিন ইঞ্চি। এর ওজন ২৮০ গ্রাম। পিছনে মেটাল ব্যাকশেল।
শাওমি নোট টেন স্মার্টফোনটি পাওয়া যাবে মিডনাইট ব্ল্যাক, গ্ল্যাসি হোয়াইট আর আরোরা গ্রিন তিনটি ভিন্ন রঙে।
২০১৯ সালের ডিসেম্বর মাস থেকে আন্তর্জাতিক বাজারে পাওয়া যাচ্ছে ফোনটি। ফোনটির দাম হাঁকানো হয়েছে ৬৩৬ ইউ এস ডলার যা বাংলাদেশি টাকায় প্রায় ৫১হাজার টাকা। কোম্পানির অথোরাইজড ব্র্যান্ড শপ গুলোতে পাওয়া যাবে ফোনটি তবে বাংলাদেশের বাজারে কবে থেকে বিক্রয় শুরু হবে তা এখনো জানায়নি শাওমি কর্তৃপক্ষ।
Loading...

No comments

Powered by Blogger.