পুলিশের উদ্যোগে অনুষ্ঠিত স্বয়ংসিদ্ধা সম্মেলনী অনুষ্ঠান




রেখা জয়সয়াল,উঃ দিনাজপুরঃ      সমাজে নারীর অস্তিত্ব বিপরীতমুখী। দেবীমূর্তি নারীর আরাধনা হচ্ছে। অথচ বর্তমানে নারী যখন কন্যারূপে  জন্ম নিচ্ছে তখন সে হয়ে উঠছে সংসারের অশান্তি স্বরূপ, কন্যা হওয়ার অপরাধে কখনও সদ্যজাত অবস্থায় হত্যা করা হচ্ছে আবার কখনওবা শৈশবেই পাত্রস্থ করে দেওয়া হচ্ছে তাকে। আবার কখনও বা নারী পাচারের শিকার হচ্ছে এই নারীই। বাল্যবিবাহ আর মানব পাচার আজকের সমাজে একটা কঠীনতম ব্যাধি। গ্রামগঞ্জের ঝুঁকিপূর্ণ ও বিপ্নন পতিবারগুলোকে মানব পাচার ও বাল্যবিবাহের মতো সামাজিক ব্যাধির বিরুদ্ধে সচেতনতা গড়ার লক্ষ্যে এবং সরকারি বিভিন্ন জনমুখী প্রকল্প ও যোজনার সাথে যুক্ত করার উদ্দেশ্যে  রায়গঞ্জ জেলা পুলিশের উদ্যোগে অনুষ্ঠিত হল স্বয়ংসিদ্ধা সম্মেলনী অনুষ্ঠান। রাজ্যের মাননীয়া মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়ের অনুপ্রেরনায় রায়গঞ্জ জেলা পুলিশের উদ্যোগে এবং রায়গঞ্জ মহিলা থানায় পরিচালনায়  রায়গঞ্জ বিধানমঞ্চে অনুষ্ঠিত হল স্বয়ংসিদ্ধা সম্মেলনী অনুষ্ঠান।  বিভিন্ন স্কুল ও কলেজের ছাত্রীদের নিয়ে এই স্বয়ংসিদ্ধা সম্মেলনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন উত্তর দিনাজপুর  জেলা পুলিশ সুপার সুমিত কুমার, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার নিকিতা ফোনিং, রায়গঞ্জ পুরসভার চেয়ারম্যান সন্দীপ বিশ্বাস,  ভাইস চেয়ারম্যান অরিন্দম সরকার,  ডিএসপি প্রসাদ প্রধান, ডিএসপি গোবিন্দ শিকদার, রায়গঞ্জ থানার আইসি সুরজ থাপা সহ জেলার বিভিন্ন সমাজ কল্যান মূলক প্রতিষ্ঠানের বিশিষ্ট ব্যাক্তিবর্গ। রায়গঞ্জ জেলা পুলিশ সুপার সুমিত কুমার বলেন স্কুল কলেজের ছাত্রীদের নিয়ে তৈরি করা হচ্ছে স্বয়ংসিদ্ধা সংগঠন।  এরাই সামাজিক ব্যাধি বাল্যবিবাহ ও মানব পাচার নিয়ে এলাকায় এলাকায় প্রচার করবে। স্বয়ংসিদ্ধা গ্রুপের মাধ্যমেই সমাজকে সচেতন করার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। রায়গঞ্জ পুরসভার ভাইস চেয়ারম্যান অরিন্দম সরকার তাঁর বক্তব্যে জেলা পুলিশের উদ্যোগে এই স্বয়ংসিদ্ধা সম্মেলনী অনুষ্ঠানকে স্বাগত জানিয়ে সমাজের সর্বস্তরের মানুষকে বাল্যবিবাহ ও মানব পাচার প্রতিরোধে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান। 
Loading...

No comments

Powered by Blogger.