কুমারিত্ব বিক্রির জন্যে বিজ্ঞাপন


দ্বিতীয়বারের মতো কুমারিত্ব বিক্রির জন্যে অনলাইনে বিজ্ঞাপন দিয়েছে সেই ব্রাজিলীয় ছাত্রী ও মডেল তারকা ক্যাটরিনা মিগলিওরিনি (২১। কয়েকমাস আগেও এই ছাত্রী কুমারিত্ব বিক্রির জন্যে অনলাইনে বিজ্ঞাপন দিয়েছিল ।
তার দাবি তখন তার কুমারিত্ব বিক্রির জন্য এক জাপানির সঙ্গে দরদাম হয়েছিল বটে তবে শেষ পর্যন্ত তা চূড়ান্ত পরিনতির দিকে যায়নি। তার দাবি তখন ঐ লোকটির সঙ্গে কোন প্রকার যৌনকার্য্ হয়নি।
কুমারিত্ব বিক্রির জন্যে দ্বিতীয়দফায় বিজ্ঞাপন
মিগলিওরিনি‘র বলছেন তার কুমারিত্ব এখনো নষ্ট হয়নি, অক্ষুন্ন রয়েছে । আগেরবারের চেযে এবার চাহিদা ও অর্থের পরিমাণ বেশি হবে বলেও দাবি তার।
মিগলওরিনি বলেছে, এবার আমার কুমারিত্ব বিক্রির জন্যে ৯ লক্ষ ৩০ হাজার পাউন্ড আশা করছি। 
গতবারের নিলামে ব্রাজিল, যুক্তরাষ্ট্র, অষ্ট্রেলিয়া, ভারতসহ বিভিন্ন দেশের ১৪ জন প্রতিযোগী অংশ নিয়েছিল। অবশেষে জাপানের নাগরিক ‘নাতসু’ ৭ লক্ষ ৮০ হাজার পাউন্ডের বিনিময় মিগলিওরিনি’র কুমারিত্ব কিনেছিল।কিন্তু সে মিলিওরিনির শয্যাসঙ্গী হয়ে উঠেনি।কুমারিত্ব বিক্রির জন্যে দ্বিতীয়দফায় বিজ্ঞাপন
অস্ট্রেলিয়ান এক প্রামাণ্যচিত্র নির্মাতা তার ডকুমেন্টারির কাজে ব্যবহারের জন্যে মিগলিওরিনি’র সাথে চুক্তি করে এবং সেই চুক্তি মোতাবেকই কুমারিত্ব বিক্রির জন্য অনলাইনে বিজ্ঞাপন দেয়া হয়। কিন্তু শেষ পর্যন্ত অস্ট্রেলিয়ান এই ব্যক্তি মিগলিওরিনিকে কোন অর্থই প্রদান করেনি।ফলে ঐ দফা সব পরিকল্পনা ভেস্তে যায়।এনিয়ে তখন বিভিন্ন গণমাধ্যমে ব্যাপক লেখালেখিও হয়েছিল। তাই এবার সে ঠিক করেছে সে নিজ উদ্যোগে তার কুমারিত্ব নিলামে তুলে বিক্রি করবে। তবে মিগলিওরিনি’র কুমারিত্ব নিয়ে অনেকের প্রশ্ন রয়েছে।
গত নিলামের টাকা মিগলিওরিনি একটি বেসরকারী প্রতিষ্ঠানকে দান করতে চেয়েছিল। কিন্তু সে নিলামের কোন টাকা না পাওয়ায় তা দিতে পারেনি।
তবে কুমারিত্ব নিলামে তোলার কোন বিধানই নেই। এমনকি আন্তর্জাতিক পতিতাবৃত্তির আইনেও কুমারীত্ব নিলামে তোলার কোন বিধান নেই। এটি মানব পাচারের চেয়েও ঝুঁকিপূর্ণ।
Loading...

No comments

Powered by Blogger.