১০০ বছরের পুরনো চুল!



ইউরোপের প্রাচীন শিল্প হচ্ছে চুল দিয়ে বিভিন্ন জিনিস তৈরি করা। সেখানে গয়না, ছবির ফ্রেম, ঘর সাজানোর বিভিন্ন উপকরণ তৈরি হতো চুল দিয়ে। সপ্তদশ শতক থেকেই এ শিল্প শুরু হতে থাকে। পরে ঊনিশ শতকে চুল-শিল্প বিশাল আকার ধারণ করে।জানা যায়, ইংল্যান্ড ও ফ্রান্স পার হয়ে এ শিল্প ১৯ শতকে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে এসে পৌঁছায়। সেখানেও তৈরি হতে থাকে চুলের ব্রেসলেট, নেকলেস, আংটি, পেন্টিং, মেডালিয়ন ইত্যাদি। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের মিসুরি স্টেটের ইন্ডিপেন্ডেন্স শহরের বাসিন্দা লেইলা কোহুন একসময়ে কসমেটলজি পড়তেন। অবসরের পর তিনি গড়ে তোলেন সংগ্রহশালা। নাম দেন ‘লেইলাজ হেয়ার মিউজিয়াম’। এই মিউজিয়ামেই স্থান পায় ১৯ শতক থেকে বর্তমান পর্যন্ত চুল-শিল্পের বিভিন্ন নিদর্শন।মিউজিয়াম সূত্রে জানা যায়, ১৯৫৬ সাল থেকে লেইলা সংগ্রহ করছেন এসব নিদর্শন। তার তৈরি মিউজিয়াম দেশের অন্যতম দর্শনীয় স্থানে পরিণত হয়েছে। মিউজিয়ামে ৬শ’র বেশি রিদ, ২ হাজার গয়না রয়েছে। সবচেয়ে পুরনো সংগ্রহ হচ্ছে একটি ব্রোচ। এটি ১৬৮০ সালের। এখানে ফ্রেমে বাঁধানো অনেক শিল্পকর্ম রয়েছে। এর বাইরে রয়েছে বেশকিছু বিখ্যাত মানুষের চুল। এই তালিকায় রয়েছেন- জর্জ ওয়াশিংটন, আব্রাহাম লিঙ্কন ও মহারানি ভিক্টোরিয়াও।
Loading...

No comments

Powered by Blogger.