মকর সংক্রান্তিঃ উৎসব প্রিয় বাঙালির গ্রাম্য সংস্কৃতির চিরকালের এক পার্বণ

Image result for ‘আউনি বাউনি’
বাংলায় একটা প্রবাদ প্রচলিত আছে, “কারও পৌষ মাস তো কারও সর্বনাশ”। এই প্রবাদটি আমরা সকলেই শুনেছি। এতে সর্বনাশের বিপরীতে রাখা হয়েছে পৌষ মাস। আর এ থেকেই স্পষ্ট হয়ে যায়, পৌষ সমৃদ্ধির কাল, পূর্ণতার সময়। সেই সমৃদ্ধি বাঙালির ঐহিক জীবনে, পূর্ণতার ছবি ধরা পরে বাংলার খেতে খামারে। তাই এই সময়েই বাঙালি উৎসবের আয়োজনে মেতে ওঠে। 
Related image
 পৌষ মাস পড়তেই বা আরও স্পষ্ট করে বলতে গেলে বাংলার আকাশে বাতাসে শীতের আমেজ শুরু হতেই বাঙালি জীবন জুড়ে চারটি প’এর প্রভাব দেখা যায়। পৌষ, পার্বণ, পিঠে, পুলি। পৌষ পার্বণ। বাঙালির বারো মাসে তেরো পার্বণের সবথেকে বড় পার্বণ। বাঙালি জীবনে ‘শুভ’ পৌষ মাসকে বিদায় না দিতে চেয়ে গ্রাম বাংলায় পৌষ সংক্রান্তির আগের সারা রাত জেগে থেকে ‘পৌষ জাগানো’ এবং সংক্রান্তির দিন নানান অনুষ্ঠানকে সামগ্রিকভাবে ‘পৌষ পার্বণ’ বলে। 
Related image
 পাস্তা পিজা খাওয়া শহুরে বাঙালি জীবনে পৌষ পার্বণের প্রভাব একটু কম হলেও প্রভাব বুঝতে আমাদের যেতে হবে গ্রাম বাংলার ঘরে ঘরে। নতুন চালের গুঁড়ো, নতুন গুড়, নারকেল আর দুধ দিয়ে তৈরি করা হয় নানা ধরনের পিঠে এই সময়।পাড়ায় পাড়ায় প্রতিবেশীরা একে অন্যকে পিঠে খাওয়ার আমন্ত্রণ জানায়। 
Related image
 এই পৌষ মাসে গ্রাম বাংলার ঘরে ঘরে নতুন ধান ওঠে, যা এক অর্থে বাঙালির কাছে ‘নবান্ন’। খেতের পাকা ধান প্রথম ঘরে ওঠা উপলক্ষে পালিত হয় এই উৎসব। এরকমই একটি উৎসব ‘আউনি বাউনি’। হেমন্তকালে আমন ধান ঘরে প্রথম তোলার প্রতীক হিসেবে কয়েকটি পাকা ধানের শিষ ঘরে এনে কিছু নির্দিষ্ট আচার অনুষ্ঠান পালন করা হয়ে থাকে এই সময়। 

Image result for সংক্রান্তি
দু’-তিনটি খড় এক সঙ্গে লম্বা করে পাকিয়ে তার সঙ্গে ধানের শিস, মুলোর ফুল, সরষে ফুল, আমপাতা ইত্যাদি বেঁধে ‘আউনি বাউনি’ তৈরি করা হয়। এই ‘আউনি বাউনি’ ধানের গোলা, খড়ের চাল, ঢেঁকি, বাক্স-প্যাঁটরায় গুঁজে দেওয়া হয়।বছরের প্রথম ফসলকে অতিপবিত্র ও সৌভাগ্যদায়ক মনে করে একটি পবিত্র ঘটে সারা বছর ধরে সংরক্ষণ করা হয়। এই আচারটিকেই ‘আউনি বাউনি’ বলা হয়।
Loading...

No comments

Powered by Blogger.