প্রধানমন্ত্রীকে যৌন খলনায়কের খেতাব



পতিতাবৃত্তি ব্যবস্থাকে প্রামাণ্য রূপ দিতে পরিচালকের ভূমিকা পালন করেছেন ইতালির সাবেক প্রধানমন্ত্রী বার্লুসকোনি।
 
বৃহস্পতিবার এমনটিই রায় দিলেন দেশটির মিলান আদালত। টেলিগ্রাফ অনলাইনে এ খবর জানানো হয়েছে।
 
একটি দেশের প্রধানমন্ত্রীর হওয়া সত্ত্বেও যৌন খলনায়কের খেতাব বার্লুসকোনির মতো আর বিশ্বের আর কেইবা পেয়েছেন? তাকে নিয়ে আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমগুলো যে সব প্রতিবেদন, সম্পাদকীয় প্রকাশ করেছে তা ইতালির মতো সভ্য দেশের জন্য চরম লজ্জার। তাই অনেকেই তাকে ‘পতিতার বিশ্ব দালাল’ হিসেবে অভিহিত করে থাকেন।
 
এদিকে বৃহস্পতিবার ইতালির আদালত তার আপিল আবেদনের ওপর ৩৩১ পৃষ্ঠার রায় দেন। সেখানে বিশ্ব পতিতাবৃত্তির ঘটক হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে তাকে।
 
বার্লুসকোনি তার বাসভবনে কিশোরী মেয়েদের নিয়ে বাংগা বাংগা পার্টির আয়োজন করতেন এবং তিনি ছিলেন এর পরিচালক অর্থাৎ ঘটক। পার্টিতে তিনি আমন্ত্রিত অতিথিদের মনোরঞ্জনের চেষ্টা করতেন।
 
এর আগে এ অভিযোগে বার্লুসকোনির সাত বছরের কারাদ- হয়। রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করেন তার আইনজীবী। কিন্তু আপিল নিষ্পতি রায়ে বার্লুসকোনিকে আরও বেশি অপরাধী হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে এবং রায়ও বলবৎ রাখা হয়েছে। ফলে সাত বছরের জেলের ঘানি টানতেই হচ্ছে তাকে।
 
এমন সময় আদালত বার্লুসকোনির বিরুদ্ধে রায় দিলেন যখন পার্লমেন্টে তার রাজনীতি নিষিদ্ধ করার প্রস্তাব উঠতে যাচ্ছে। টেলিগ্রাফের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, এ রায় তার ২০ বছরের রাজনৈতিক জীবনের অবসান ঘটাতে মুখ্য ভূমিকা পালন করবে।
 
বার্লুসকোনি রাবি (হার্ট স্টিলার) নামে কিশোরী মেয়েটির সঙ্গে অনৈক সম্পর্ক গড়ে তোলেন। বিনিময়ে মেয়েটিকে অঢেল অর্থ ও অলংকার দিতেন তিনি। আর রাবি বিশ্বের নানা প্রান্ত থেকে কিশোরীদের ভাড়া করে বাংগা বাংগা পার্টিতে আনতেন।
 
তবে রায়ে যে বিষয়টি সবচেয়ে পরিষ্কার তা হল, একজন যৌনতার ঘটককে কোন মতেই মর্যাদার আসনে বসাতে রাজি নন ইতালির আদালত।
Loading...

No comments

Powered by Blogger.