ফেসবুকে লুকোচুরি: বান্ধবী যখন পুত্রবধূ


পৃথিবীর সব দেশেই পুত্রবধূদের কাছে স্বামীর বাবা বা শ্বশুররা সম্মানিত ব্যক্তি। তাদের সম্পর্ক অনেকটা বাবা মেয়ের মতোই হয়ে থাকে। কিন্তু সম্প্রতি চীনে শ্বশুর আর পুত্রবধূর মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক নিয়ে একটি ঘটনা মিডিয়ায় প্রকাশের পর বিশ্বজুড়ে তোলপাড় শুরু হয়েছে। ফেসবুকের কল্যাণে এ অসামাজিক ঘটনাটি ঘটেছে।  
জানা গেছে, ৫৭ বছরের ওয়াংয়ের সঙ্গে অনলাইনে পরিচয় হয় লিলির । সম্পর্কে তারা পুত্রবধূ আর শ্বশুর। কিন্তু ফেসবুকে দুজনেই নিজেদের পরিচয় গোপন রাখায় তাদের সম্পর্কটিও গোপন থাকে। এমনকি তারা দুজন দুজনকে যে ছবি পাঠান সেগুলোও ছিল অন্যের। অবশেষে দীর্ঘদিনের বন্ধুত্বের জের ধরে তারা পরস্পরের সঙ্গে প্রথমবারের মতো দেখা করার সিদ্ধান্ত নেন। ওয়াং হেলংঝিয়াং প্রদেশের মুলিং শহরের এক হোটেলে রুম ভাড়া নেন বান্ধবী লিলির সঙ্গে দেখা করার জন্য।
এদিকে ওয়াংয়ের ছেলে এবং লিলির স্বামী ডা. জুন স্ত্রীর অনলাইন প্রেম সম্পর্কে জেনে ফেলেন। স্ত্রীর ও তার প্রেমিককে হাতে নাতে ধরার জন্য তিনি লিলির পিছু নেন। গন্তব্যে পৌঁছে তার তো চক্ষু চড়ক গাছ! লিলির বন্ধু যে আর কেউ নয়, স্বয়ং তার বাবা। রেগে গিয়ে জুন তার বাবা ও স্ত্রীকে পেটান। এতে লিলির তিনটি দাঁত ভেঙ্গে যায় আর মাথায় আঘাত লাগার কারনে ওয়াং বর্তমানে স্থানীয় একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রযেছেন।
Loading...

No comments

Powered by Blogger.