কুৎসিত সন্তান জন্ম দেওয়ায় স্ত্রীর নামে মামলা


এটা কোন গল্প নয় কিংবা নয় কোন কল্প কাহিনী। আমাদের এই মহাদেশেরই ঘটনা এটি। পাঠক ভাবছেন ঘটনাটি বলতে এত ভূমিকা নেয়ার কারণ কি তাইতো? কারণ আছে বলেই বলছি, কুৎসিত সন্তান জন্ম দেয়ার কারণে সম্প্রতি চীনের এক ব্যক্তি তাঁর স্ত্রীর নামে মামলা করেছে। ঐ ব্যক্তির নাম জিয়ান ফেং। উত্তর চীনের একটি আদালতে ফেং তাঁর স্ত্রীর নামে মামলা দায়ের করেন।
 
ফেং আদালতে বলেন, স্ত্রীর সঙ্গে পরিচয়ের আগেই নাকি তাঁর স্ত্রী প্লাস্টিক সার্জারি করে চেহারায় পরিবর্তন আনেন। পূর্বের কুৎসিত রূপকে ঢেকে সৌন্দর্য নিয়েই তিন বিয়ে করেন ফেং কে। তবে প্রথম সন্তান কুৎসিত হওয়ায় বিষয়টিতে গুরুত্ব দেননি ফেং। কিন্তু পরপর আরো দুটি সন্তান কুৎসিত হওয়ায় সন্দেহ হয় তাঁর। পরে খবর নিয়ে দেখেন তাঁর সঙ্গে পরিচয়ের আগে স্ত্রী প্লাস্টিক সার্জারি করিয়ে রূপের পরিবর্তন করিয়েছেন। এতে করে বাইরে থেকে স্ত্রীকে সুন্দর দেখালেও কুৎসিত জিন বদলাতে পারেনি ফেংয়ের স্ত্রী। ফলে কুৎসিত সন্তান হচ্ছে তাঁর।
 
আর এ কারণেই স্ত্রীকে ডিভোর্স দিয়ে আদালতের শরনাপন্ন হয়েছেন তিনি। আর ফাঁদে ফেলে নকল রূপ দেখিয়ে বিয়ে করার কারণে স্ত্রীর বিরুদ্ধে আলালতে মামলাও ঠুকেছেন তিনি। এ ঘটনা একবছর আগে ঘটলেও সম্প্রতি ফেং ফেসবুকে তাঁর একটি ছবি পোস্ট করলেই তা নিয়ে আলোচনা আবারো সরব হয়ে ওঠে।
Loading...

No comments

Powered by Blogger.