অসুর বধ করেছি ! অনুশোচনা নেই মহিলার: পরিষ্কার খুন কবুল





অসুর বধ করেছি ! অনুশোচনা নেই মহিলার: পরিষ্কার খুন কবুল

মহিলাদের উপর অত্যাচার করা এবং তাদের উপর নির্যাতন চালানো দুস্কৃতীদের সমাজের অসুর হিসেবে চিহ্নিত করা উচিত প্রতিটি নারীর। আর তাদের এভাবেই শেষ করে ফেলা উচিত। তাই তিনি গোপাল দাসকে অসুর বলে চিহ্নিত করে তাকে নিজে হাতে খুন করেছেন।  উত্তর দিনাজপুর জেলার রায়গঞ্জ শহরের উকিলপাড়ায় গোপাল দাস নামে এক ব্যাক্তি খুনের ঘটনায় যুক্ত থাকার অপরাধে ধৃত মহিলা সরস্বতী মিশ্র ঝাঁ এই ভাষাতেই তার প্রতিক্রিয়া ব্যাক্ত করলেন। তিনি নিজে একাই খুন করেছেন গোপালকে। আর এতে তার কোনও অনুশোচনা নেই, কেননা তিনি মনে করেন সমাজের একটা অসুরকে বধ করেছেন তিনি। তার মতে মেয়েদের প্রতি যেসব পুরুষই এই ধরনের নির্যাতন অত্যাচার করবে তাদের এভাবেই শেষ করে দেওয়ার বার্তা দেন ধৃত মহিলা সরস্বতী মিশ্র ঝাঁ। তার অভিযোগ তার  উপর চরম অত্যাচার করত গোপাল। শুধু তাই নয়, তার মেয়ের উপরেও কুনজর ছিল গোপালের। কিশোরী থেকে যুবতী কিংবা বয়স্কা মহিলাদের কুনজরে দেখার জন্য নিজে হাতে খুন করেছেন গোপাল দাসকে।  এবং এই কাজটি করে তিনি ঠিক কাজই করেছেন বলে অপকটে স্বীকার করেন খুনের  ঘটনায় অভিযুক্ত সরস্বতী।

উল্লেখ্য, শনিবার রাতে রায়গঞ্জ শহরের উকিলপাড়ায় গোপাল দাস নামে এক ব্যাক্তিকে ডেকে নিয়ে এসে মদ্যপান করিয়ে গলায় ছুরি চালিয়ে খুন করা হয়েছিল। মৃতার পরিবারের পক্ষ থেকে গোপালের পরকীয়া প্রেমিকা মিলনপাড়ার বাসিন্দা সরস্বতী মিশ্র ঝাঁ এর নামে রায়গঞ্জ থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়। মৃতের পরিবারের অভিযোগের ভিত্তিতে রবিবার সন্ধ্যায় সরস্বতী মিশ্র ঝাঁকে গ্রেফতার করে রায়গঞ্জ থানার পুলিশ। ধৃত মহিলা সরস্বতী মিশ্র ঝাঁ তিনি যে একাই গোপালকে খুন করেছেন অপকটে তা স্বীকারও করেন। তার এবং তার মেয়ের উপর অত্যাচার এবং এলাকার মেয়েদের উপর কুনজর দেওয়ার কারনেই গোপালকে সমাজের অসুর হিসেবে চিহ্নিত করে তাকে খুন করে শেষ করে ফেলেছেন বলে জানিয়েছেন ধৃত সরস্বতী। সোমবার ধৃত সরস্বতী মিশ্র ঝাঁকে রায়গঞ্জ আদালতে তোলা হলে ধৃতাকে ৪ দিনের পুলিশ রিমান্ডের নির্দেশ দেন আদালত।


Loading...

No comments

Powered by Blogger.