স্ত্রীকে প্রেমিকের হাতে তুলে দিলেন স্বামী!



মধ্যপ্রদেশের ভোপালের বাসিন্দা মহেশ। সংগীতার সঙ্গে বিয়ে হয় তার। তাদের বৈবাহিক জীবন দীর্ঘ সাত বছর চলছিল। বিয়ের আগে সংগীতার সঙ্গে অন্য এক পুরুষের সম্পর্ক ছিল। কিন্তু দীর্ঘ সাত বছরের বৈবাহিক জীবনে তার তিলমাত্র প্রভাব পড়তে দেননি সংগীতা। দুই সন্তানেরও জন্ম দেন তিনি। কিন্তু কয়েক বছর আগে পুরনো প্রেমিকের সঙ্গে দেখা হয় সংগীতার। তারপর থেকেই সুখ ক্রমশ কমতে থাকে মহেশ-সংগীতার জীবনে। স্ত্রী কেন এমন মনমরা হয়ে থাকেন খুঁজতে গিয়ে মহেশ জানতে পারেন সংগীতের পুরনো সম্পর্কের কথা। জানতে পারেন, সেই প্রেমিককে মেনে নিতে পারেননি সংগীতার বাবা। তাই পরিবারের চাপে পড়ে একসময় সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার মহেশকে বিয়ে করতে বাধ্য হন ফ্যাশন ডিজাইনার সংগীতা।কাউন্সিলিংয়ের সময় মহেশ জানান, তিনি বারবার তার স্ত্রীকে বোঝানোর চেষ্টা করেছিলেন। কিন্তু কোনো লাভ হয়নি। সংগীতা পুরনো প্রেমিকের কাছে ফিরতে চান। সংগীতাও একই কথা বলেন। মহেশ এরপর আদালতকে জানান, তিনি চান না তার আর সংগীতার সম্পর্কের প্রভাব তাদের সন্তানদের ওপর পড়ুক। তাই তিনি এই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। তবে ডিভোর্সের পর মহেশ সন্তানদের তার কাছে রাখার আবেদন জানিয়েছেন। সংগীতাও অসম্মত হননি।
Loading...

No comments

Powered by Blogger.