একাধিক অদ্ভূত শয্যাসঙ্গীর কথা জানালেন এই তরুণী!


যুক্তরাজ্যের এই তরুণীর নাম অ্যামেথিস্ট রেলম। তার দাবি, তিনি ২০টি প্রেতাত্মার শয্যাসঙ্গিনী হয়েছেন। অশরীরীদের সঙ্গে শরীরী মিলন সম্ভব কি না, সে নিয়ে প্রশ্ন থাকতেই পারে। কিন্তু তার নিজের বক্তব্যে অনড় এই তরুণী। খবর নিউজ মেইলের।
প্রতিবেদন থেকে জানা যায়, ২৭ বছর বয়সি অ্যামেথিস্ট পেশায় স্পিরিচুয়াল গাইডেন্স কাউন্সেলর। পেশাগত কারণেই ভৌতিক জগতের সঙ্গে তার নাকি ঘনিষ্ঠ সম্বন্ধ। ১২ বছর আগে তার তৎকালীন প্রেমিক এক নতুন বাড়িতে গিয়ে ওঠেন। সেখানে তিনি প্রথম অশরীরীর অস্তিত্ব টের পান।
প্রথমে তা ছিল একান্তভাবেই আবছায়া অনুভূতি। কোনও অদৃশ্য শক্তির উপস্থিতি তিনি টের পেতেন। কিন্তু ক্রমে তা শরীরী হয়ে ওঠে। তিনি তার উরুর উপরে চাপ অনুভব করতেন, সেই সঙ্গে ঘাড়ের কাছে কারোর নিঃশ্বাস পড়ছে টের পেতেন।
ক্রমে সেই অশরীরীর সঙ্গে তার শরীরী সম্পর্ক গড়ে ওঠে। অ্যামেথিস্টের ভাষায়, অবর্ণনীয় আনন্দ সেই মিলনে। তিন বছর সেই সম্পর্ক টিকেছিল। কিন্তু তার প্রেমিক একদিন তাকে ভূতের সঙ্গে মিলিত অবস্থায় দেখে ফেলেন। তারপর সেই ভূত আর ফিরে আসেনি।
মানুষ প্রেমিকের সঙ্গ থেকে বেরিয়ে আসেন অ্যামেথিস্ট। একের পর এক প্রেতাত্মার সঙ্গে চলতে থাকে তার প্রেম। সেই সব শরীরী ভৌতিক প্রেম তাকে অন্য এক জগতের সন্ধান দিয়েছে বলেই তিনি মনে করেন।
একে একে ২০টি প্রেতাত্মার শয্যাসঙ্গিনী হয়েছেন তিনি। অ্যামেথিস্ট আরও জানান, কোনও ভূতের মাধ্যমেই গর্ভবতী হতে চান তিনি।
অ্যামেথিস্টের দাবির সত্যতা নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করেছেন বেশির ভাগ মানুষ। কিন্তু তাতে অ্যামেথিস্টের কিছু যায় বা আসে বলে মনে হয় না। তিনি ভৌতিক প্রেমিকদের নিয়ে সুখেই আছেন বলে জানান।
Loading...

No comments

Powered by Blogger.