চলন্ত ট্রেনে সন্তান জন্ম!


ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা লালমনিরহাটগামী আন্তঃনগর ‘লালমনি এক্সপ্রেস’ ট্রেনে এক ফুটফুটে শিশুর জন্ম দিয়েছেন প্রসূতি মা নবিয়া বেগম। ট্রেনের সঙ্গে মিলিয়ে শিশুটির নাম রেখেছেন ‘লালমনি’।
গত দুই বছর আগে লালমনিরহাটের কালীগঞ্জ উপজেলার চলবলা ইউনিয়নের তেঁতুলিয়া গ্রামের ছকমাল মিয়া অভাবের কারণে কাজের খোঁজে স্ত্রী নবিয়া বেগমকে নিয়ে ঢাকায় যান। স্ত্রী নবিয়া নির্মাণ শ্রমিকের কাজ করেন। আর স্বামী দিনমজুরের কাজ করেন। তারা ঢাকায় ভাড়া বাড়িতে থাকেন। তবে ঢাকার ক্লিনিকে সন্তানসম্ভবা স্ত্রীর অপারেশন করার মতো স্বামীর সামর্থ্য না থাকায় স্বামী সিদ্ধান্ত নেন গ্রামে গিয়ে স্থানীয় হাসপাতালে ভর্তি করবেন স্ত্রীকে।
সে কারণেই গত রোববার রাতে রাজধানীর কমলাপুর থেকে উত্তরবঙ্গের লালমনিরহাটগামী আন্তঃনগর লালমনি এক্সপ্রেসে করে নবিয়া ও তার স্বামী ছকমাল মিয়া বাড়ি যাচ্ছিলেন। ট্রেন ছাড়ার কিছুক্ষণ পরই তার প্রসববেদনা ওঠে। গভীর রাতে আশপাশে ট্রেন থামার মতো কোনো রেলস্টেশন ছিলো না। ফলে নবিয়া ট্রেনেই সন্তানের জন্ম দেন।
গতকাল শনিবার (৩০ নভেম্বর) দুপুরে লালমনিরহাটের কালীগঞ্জ উপজেলার চলবলা ইউনিয়নের তেঁতুলিয়া গ্রামে তার বাড়িতে শিশুটির খোঁজ নিতে গেলে এ কথা জানান প্রসূতি নবিয়া বেগম।
নবিয়া জানান, সন্তান ভূমিষ্ঠ হওয়ার পর রক্তক্ষরণ বন্ধ না হলে অন্য যাত্রীরা বগুড়া রেলস্টেশনে নামার পরামর্শ দেন। ট্রেনের সঙ্গে মিল রেখে নবজাতকের নাম ইব্রাহীম হোসেন (লালমনি) রাখা হয়েছে।
প্রসূতি নবিয়ার স্বামী ছকমাল হোসেন জানান, ছেলে ‘লালমনিকে’ সুশিক্ষায় শিক্ষিত করে রেলের চাকরিতে যোগদান করাতে চাই। সবার কাছে আমার সন্তান ‘লালমনির’ জন্য দোয়া চাইছি।
চলবলা ইউনিয়নের (ইউপি) চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান মিজু বলেন, ইউনিয়ন পরিষদের পক্ষ থেকে খোঁজ খবর রাখা হচ্ছে। প্রসূতি নবিয়া ও তার নবজাতক সুস্থ আছেন।
Loading...

No comments

Powered by Blogger.