গৃহবধূ তাঁর দেড় বছরের শিশুপুত্রের মৃতদেহ উদ্ধার !চাঞ্চল্য



 জয়ন্ত সাহা,   আসানসোল :  অন্ডাল মোড় পুকুর থেকে এক গৃহবধূ ও তাঁর দেড় বছরের শিশুপুত্রের মৃতদেহ উদ্ধার হল আজ অর্থাৎ বুধবার। মৃতার নাম রূপালী দাস(৩৩)। ঘটনাটি ঘটেছে অন্ডালের।

জানা গেছে, বছর তিনেক আগে মুর্শিদাবাদের বাসিন্দা সুব্রত দাসের সাথে প্রেম করে বিয়ে হয় উত্তর দিনাজপুরের ইটাহার থানার কুকরা কুন্দা গ্রামের বাসিন্দা রূপালীর। গৃহবধূর স্বামী অন্ডালে ডিভিসিতে ঠিকাকর্মী হিসেবে কাজ করেন। সেই কারনে স্ত্রী ও সন্তানকে নিয়ে অন্ডালে বাড়ি ভাড়া নিয়ে থাকতেন।
বাড়ির মালিক সত্যনারায়ণ কুন্ডু জানান যে, গত সোমবার তাঁর ছেলের  বিয়ের প্রীতিভোজের অনুষ্ঠান ছিল। সেই অনুষ্ঠানে কোনো কারনে সুব্রত ও রূপালীর মধ্যে বচসা হয়। এরপর থেকেই সন্তান সহ নিখোঁজ হয়ে যান রূপালী। এরপর আজ সকালে স্থানীয় একটি পুকুর থেকে দুজনের মৃতদেহ উদ্ধার হয়।

গৃহবধূর দাদা সুদীপ দাসের অভিযোগ, বিয়ের পর থেকেই তাঁর বোনের উপর অত্যাচার চালাতে শুরু করে বোনের স্বামী। কারন হিসেবে তিনি জানান যে, বিয়ের সময় রূপালীর পরিবারের পক্ষ থেকে সুব্রতকে তেমন একটা বরপণ  দিতে পারেননি। তবে প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন যে বিয়ের পর জামাইয়ের নামে এক বিঘা জমি দেবেন। কিন্তু দারিদ্রতার কারনে সেই জমিও দিতে পারেননি। তারপর থেকেই বোনের উপর অত্যাচার শুরু করে সুব্রত। এছাড়াও সুদীপবাবু জানান যে, তাঁর বোন রূপালী যথেষ্ট ভাল সাঁতার জানতো, তাই জলে ডুবে মারা যাওয়ার কোনো কথাই নয়। তাঁর বোন ও ভাগ্নেকে সুব্রতই খুন করে জলে ফেলে দিয়েছে বলে দাবি করছেন রূপালীর দাদা।
খুনের অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে অন্ডাল থানায়। পুলিশ মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য দুর্গাপুর মহকুমা হাসপাতালে পাঠিয়েছে। অপরদিকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য রূপালীর স্বামী সুব্রত দাসকে পুলিশ আটক করেছে।
Loading...

No comments

Powered by Blogger.