জোড়-বিজোড় নীতি লঙ্ঘনে অভিযুক্ত কেন্দ্রীয়মন্ত্রী, দিল্লিবাসীকে ধন্যবাদ কেজরিওয়ালের

Image result for bijoy goel odd even

বায়ুদূষণে নাজেহাল রাজধানী দিল্লি| দিল্লিবাসীকে স্বস্তি দিতে সোমবার, ৪ নভেম্বর থেকে আগামী ১৫ নভেম্বর পর্যন্ত রাজধানীতে চালু করা হয়েছে জোড়-বিজোড় নীতি| সাধারণ নাগরিক জোড়-বিজোড় নীতি মানলেও, তা মানলেন না প্রবীণ বিজেপি নেতা তথা রাজ্যসভার সাংসদ বিজয় গোয়েল| বিজেপি সাংসদের কথায়, ‘জোড়-বিজোড় নীতি আসলে কেজরিওয়াল সরকারের একটি নাটক এবং নির্বাচনী স্টান্ট|’
Image result for bijoy goel odd even
সোমবার সকাল আটটা থেকে দিল্লিতে চালু হয় জোড়-বিজোড় নীতি| জোড়-বিজোড় নীতি চালু হওয়া সত্ত্বেও, এদিন নিজের বাড়ি থেকে কমলা রঙের বিজোড় সংখ্যার গাড়ি নিয়ে রাস্তার বের হন বিজয় গোয়েল| জোড়-বিজোড় নীতি লঙ্ঘন করায় বিজেপি নেতা বিজয় গোয়েলের নামে চালান কেটেছে দিল্লি ট্র্যাফিক পুলিশ| বিজয় গোয়েলের কথায়, ‘এই নীতি দিল্লি সরকারের চালাকি, নিজেরাই বলছে খড় পোড়ানোর জন্য দূষণ হচ্ছে, তাহলে এই নীতি কীভাবে সাহায্য করবে?’
Image result for kejri
বিজয় গোয়েল জোড়-বিজোড় নীতি না মানলেও, দিল্লিবাসী এদিন জোড়-বিজোড় নীতি মেনেছে| তাই দিল্লিবাসীকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল| কেজরিওয়ালের কথায়, ‘প্রতিদিন ৩০ লক্ষ গাড়ি দিল্লির রাস্তায় চলাচল করে এবং জোড়-বিজোড় নীতির কারণে কমপক্ষে ১৫ লক্ষ গাড়ি রাস্তায় নামবে| সুতরাং এই নীতি দূষণ হ্রাস করতে সহায়তা করবে| দিল্লিবাসী সহযোগিতা করছেন, এ জন্য আমি ভীষণ খুশি|’ কেজরিওয়াল আরও জানিয়েছেন, ‘পঞ্জাব এবং হরিয়ানায় প্রায় ২৭ লক্ষ কৃষক রয়েছেন, দু’বছরে মাত্র ৬৩,০০০ কৃষককে মেশিন দেওয়া হয়েছে, ওই মেশিনের সাহায্যে খড় পোড়ানোর পরিবর্তে তা ব্যবহার করতে পারবেন কৃষকরা| এই গতিতে প্রতিটি কৃষকের কাছে মেশিন পৌঁছে দিতে ৩০ বছর সময় লাগবে| কেন্দ্রকে এ জন্য এক মাসের সময়সূচী প্রস্তুত করা দরকার|’
Loading...

No comments

Powered by Blogger.