শরীরের যেসব স্থানে ভুলেও পারফিউম লাগাবেন না


কোন অনুষ্ঠান, অফিসের মিটিং বা যে কোন স্থানে অংশগ্রহণ কালে শরীরে ঘেমের দুর্গন্ধ হলে তা পরিবেশকে দূষিত করার পাশাপাশি আমাদের ইমেজকেও নষ্ট করে। আর বর্তমানে যে ভ্যাঁপসা গরমে অনেকের শরীর ঘেমে দুর্গন্ধ একটু বেশি ছড়ায়। তাছাড়া সাজগোজের পর পারফিউম না মাখলে পরিপূর্ন হয়না। আমরা সাধারণত বাইরে বের হওয়ার সময় পারফিউম ব্যবহার করে থাকি। পারফিউম ছাড়া বাইরে বের হওয়ার কথা ভাবতেও পারেন না অনেকে।
তবে পারফিউম দিতে গিয়ে অনেকেই শরীরের ভুল জায়গায় পারফিউম ব্যবহার করে থাকেন, যাতে ক্ষতির সম্ভাবনা থাকে। তবে জেনে নেয়া যাক শরীরের কোন কোন জায়গায় পারফিউম না দেওয়াই ভালো-
১) চোখ
এটা আসলে বলে দিতে হয় না। চোখে পারফিউম দেওয়ার মতো বোকামি করবে না কেউই, কিন্তু ভুলেও যদি চোখে পারফিউম চলে যায় তাহলে দ্রুত অনেক বেশি পানি দিয়ে চোখ ধুয়ে ফেলতে হবে। কারণ পারফিউমে ৯৫ শতাংশ পর্যন্ত অ্যালকোহল বা স্পিরিট থাকতে পারে, এতে চোখে জ্বলুনি ও চুলকানি হতে পারে।
২) চুল
চুলে যে কোনো গন্ধ–ভালো বা খারাপ- অনেক সময় ধরে রয়ে যায়। এ কারণে চুলে পারফিউম দিলে অনেকটা সময় সুগন্ধ রয়ে যাবে, তা ভাবতে পারেন আপনি। আসলে কিন্তু পারফিউমে অ্যালকোহল থাকলে তা চুলের ক্ষতিই করতে পারে। বিশেষ করে পারফিউমটা সরাসরি তো চুলে স্প্রে করাই যাবে না। বরং হেয়ারব্রাশে পারফিউম স্প্রে করে তা দিয়ে আলতো করে চুল আঁচড়ে নিতে পারেন।
৩) হাত
হাতের কবজি অনেকেই পারফিউম স্প্রে করেন এবং দুহাতের কব্জি এক করে ঘষে নেন। এতে সারাদিনই শরীরে সুগন্ধি থাকে। কিন্তু কব্জি থেকে যেন এই পারফিউম হাতে না লেগে যায়। কারণ তাতে ত্বক শুষ্ক হতে পারে এমনকি ত্বক ফেটেও যেতে পারে। আর হাত থেকে চোখে পারফিউম গেলে তাতেও সমস্যা হতে পারে।Perfume-use-rongginn
৪) বগল
ডিওডোরেন্ট বগলে দেওয়া গেলেও পারফিউম সেখানে স্প্রে করবেন না। কারণ বগলে থাকা ঘাম গ্রন্থিতে জ্বালাপোড়া তৈরি করতে পারে তা।
তাহলে পারফিউম দেবেন কোথায়?
পালস পয়েন্টে পারফিউম দেওয়া সবচেয়ে ভালো, যেমন গলা, কব্জি ও হাঁটুর পেছনের দিকে। এসব জায়গায় ত্বকের তাপ বেশি থাকে বলে পারফিউম ত্বকের ক্ষতি করবে না।

Loading...

No comments

Powered by Blogger.