ঘুমের সময় জানিয়ে দেবে আপনার চারিত্রিক বৈশিষ্ট্য


মানুষ এবং অন্যান্য প্রাণীর দৈনন্দিন কর্মকাণ্ডের একটি স্বাভাবিক প্রক্রিয়া হচ্ছে ঘুম। মানুষ ও অন্যান্য স্তন্যপায়ী এবং অন্য বেশ কিছু প্রাণীর (যেমন কিছু প্রজাতির মাছ, পাখি, পিঁপড়া এবং ফ্রুটফ্লাই) অস্তিত্ব রক্ষার জন্য নিয়মত ঘুম আবশ্যক।
কখন, কতক্ষণ, কিভাবে ঘুমানো ভালো তা নিয়ে বিজ্ঞানীদের গবেষণার শেষ নেই। কেউ কেউ রাতের খাবার খেয়েই ঘুমিয়ে পড়েন। কেউ আবার সারারাত জেগে ভোরবেলা ঘুমিয়ে পড়েন। ঘুমানোর সময় থেকেই জানা যাবে আপনার চারিত্রিক বৈশিষ্ট্য।

৮টা-১০টার মধ্যে ঘুম
যারা ভোর বেলা ঘুম থেকে উঠার জন্য তাড়াতাড়ি রাতের খাবার খেয়ে ঘুমিয়ে পড়েন তারা নিয়মমাফিক চলতে ভালোবাসেন। তাদেরকে স্বাস্থ্য সচেতনও বলা যায়।

১০টা-১২টার মধ্যে ঘুম
সারাদিন যারা কঠিন পরিশ্রম করেন এবং ক্লান্ত থাকেন তারা সাধারণত এই সময়ে ঘুমান। বেশিরভাগ মানুষ এই সময়ে বিছানায় যান। আপনি নিয়মকানুনের বেড়াজালে নিজেকে খুব একটা বেঁধে রাখেন না। জীবনের বেশিরভাগ আনন্দ আপনি উপভোগ করতে পছন্দ করেন।

১২টা-২টার মধ্যে ঘুম
সৃজনশীল মানুষেরা রাত জেগে কাজ করতে পছন্দ করেন। রাতের অন্ধকারে আপনার মধ্যে সৃজনশীলতা জাগরিত হয়। গবেষণায় দেখা গেছে, যারা দেরি করে রাতে ঘুমান, তারা ভীতু প্রকৃতির হন।

২টা-৪টার মধ্যে ঘুম
আক্ষরিক অর্থেই আপনি মুক্ত বিহঙ্গ। নিজেকে কোনও ধরা-বাঁধা রুটিনে আপনি বেঁধে রাখতে পারেন না। ঘড়ির কাটার সঙ্গে আপনি চলতে একেবারেই পছন্দ করেন না। ভ্রমন-আনন্দ-প্রেম আপনার খুব প্রিয়। তবে আপনার প্রেম বেশিদিন টিকে না।

Loading...

No comments

Powered by Blogger.