কালিয়াগঞ্জ থানার উদ্যোগে পুজিতা হন আদি কালি পুজা



রেখা জয়সয়াল ,উত্তর দিনাজপুর :   বাঙালী উৎসবপ্রেমী যেকোন উৎসবে গা ভাসিয়ে দেয়। আর উত্তর দিনাজপুর জেলার কালিয়াগঞ্জের ঐতিহ্যবাহী  কালি পুজোর মধ্যে অন্যতম হল কালিয়াগঞ্জ থানা আবাসিক দ্বারা পরিচালিত আদি কালি পূজা।প্রতিবারের ন্যায় এবারো অগ্রহায়নের অমাবস্যায় নিষ্ঠা ও ভক্তি সহ কারে পুজো হল মঙ্গলবার রাতে।  এই কালীপুজো কে ঘিরে একটা মিলন উৎসব প্রতিবছরই হয়ে থাকে কালিয়াগঞ্জ থানার মধ্যে । শুধু তাই নয় এই পূজাকে কেন্দ্র করে গড়ে ওঠে একটা সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির উৎসব ও । তাই এই পুজোর প্রতিবারই আকর্ষণ থাকে একদমই আলাদা। এদিকে কালিয়াগঞ্জ থানায় এই আবাসিক বৃন্দের উদ্যোগে আয়োজিত এই পুজো বিগত বছরের মতো এবারও যথাযথ ধর্মীয় আচার ও রীতি মেনে হচ্ছে। রয়েছে আলোকসজ্জার ব্যবস্থা।এই পুজো বরাবরই একটু অন্য রকম আকর্ষ হয় কারণ এই পুজোর আগে হাট কালিয়াগঞ্জে কালিমাতার মন্দিরে আবাসিকরা আগে গিয়ে আগে পুজো দিয়ে আসার পরেই তারপর এখানে পুজোতে বসা হয় । কারন বিট্রিশ আমলে হাট কালিয়াগঞ্জে থানা ছিল। পড়ে থানা স্থানান্তর হয়ে শহরের মধ্যে নিয়ে আসা হয়। সেই প্রথা মেনে আগে সেখান কার কালি মন্দিতে পূজার হবার পড়ে থানার আদিকালি পূজিত । 

এই  পুরনো আদি কালী মাতার পুজো আকর্ষণ থাকে প্রতি বছরই। পুলিশকর্মীদের ঘরের বোনেরা এবং তাদের স্ত্রীরা মূলত এই পুজো আয়োজন করে থাকে । প্রতিবছরই এই পুজোকে ঘিরে তারা ভীষণ আনন্দে মেতে উঠে এ দিনটিতে। বাঙালির শ্রেষ্ঠ উৎসব দুর্গাপূজা এবং কালী পূজা তে পুলিশকর্মীরা এবং তাদের পরিবারের কেউ তেমন আনন্দ করতে পারে না । কারণ তাদের বাড়ির কর্তারা থাকে ভীষণ ব্যস্ত সমাজের আর পাঁচজন এর চেয়ে । সুষ্ঠুভাবে যাতে সেই সময় মানুষ পুজো দেখতে পারে মণ্ডপে মণ্ডপে তাই পুলিশকর্মীরা সেই সময় বাড়িতে সময় দিতে পারে না। ফলে পুজো তাদের কাছে একদম অনাবিল আনন্দ মতন হয়ে থাকে। মনটা থাকে ভার। কিন্তু কিছুই করার নেই। তাই থানার আবাসিক বিন্দরা দুর্গাপূজা, কালী পূজার পরে এই কালী মাতার পুজোর আয়োজন করে নিজেদের সমস্ত দুঃখ কষ্ট দূর করে নেয় । কারণ একটাই বাড়ির কর্তারা তারাও এই পুজোর সময় তাদের পাশেই থাকে। এই পুজো যথা যত নিষ্ঠা সহকারে এবং আচার নিয়মেই হয়। প্রতি বছরই এ পুজোকে ঘিরে একটা সাংস্কৃতিক উৎসবের আয়োজন করা হয় । এই পুজো কমিটির সম্পাদক বলায় মোদক জানান, এই পুজো হত আগে হাট কালিয়াগঞ্জ এ। তখন থানা ছিল হাট কালিয়াগঞ্জ এ। সেখান থেকে নিয়ে এসে এই পুজো কালিয়াগঞ্জ থানাতেই শুরু হয়েছে। তিনি বলেন দুর্গাপূজা কালীপূজা তে থানার প্রতিটি কর্মীরা ব্যস্ত থাকে তাই তারা পুজোর আনন্দ উপভোগ করতে পারে না তাই পুলিশকর্মীদের এবং তাদের পরিবারের আনন্দের জন্য এই পুজো হয়ে আসছে। এই পুজোয় মা কালী অষ্টধাতুর মূর্তি গড়া। বলাই বাবু বলেন দুর্গাপূজা কালীপূজা র ঠিক একমাস পরে এই পুজো হয়ে আসছে প্রতিবছরই।


Loading...

No comments

Powered by Blogger.