বুলবুল ঝড়ের প্রেক্ষাপটে ৩৩ দফা দাবিতে ডেপুটেশানে সামিল প্রদেশ কংগ্রেস



মৃন্ময় নস্কর, দঃ২৪ পরগনা :   বুলবুল ঘুর্নিঝড়ের প্রেক্ষাপটে সাধারন মানুষের ৩৩ দফা দাবিতে ডেপুটেশানে সামিল প্রদেশ কংগ্রেস ।  নামখানা ব্লকের সামনে  ডেপুটেশানের আয়জন করেন নামখানার ব্লক নেতৃত্ব । নামখানা ব্লকের সাতটি গ্রামপঞ্চায়েত থেকে আগত শতাধিক কংগ্রেস সর্মথক ডেপুটেশানে যোগদেন । নামখানার বিডিও রফিক আহমেদের কাছে একটি ৩৩ দফার দাবি নিয়ে স্মারক লিপি জমা দেন প্রদেশ কংগ্রেস সর্মথকেরা । ২০০৯  সালে আইলার পর বেশী ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে চলতি বছরের বুলবুল ঘূর্নিঝড় । বিশেষ করে ক্ষতিগ্রস্থ নামখানা ব্লকের ফ্রেসজারগঞ্জ, মৌশুনী গ্রামপঞ্চায়েত।  কৃষি জমি থেকে বসত বাড়ি ক্ষতির পরিমান বেড়েছে ঝড়ের কয়েক মূহূর্তের মধ্য ।  ক্ষতির পরিমান  বেড়েছে ধীরে । দুর্গতদের ত্রান নিয়ে বেড়েছে সংশয় । রাজনৈতিক ত্রান নিয়ে শুরু হয়েছে কাদা ছেঁটাছেঁটি ।  ৯ তারিখে ঘটে যাওয়া বুলবুল ঘুর্নিঝড়ের ঘটনায় প্রশাসনিক ভূমিকায় উঠছে প্রশ্ন ?সাধারন মানুষের পাশে দাঁড়াতে নামখানা ব্লকের প্রদেশ  কংগ্রেসের ডাকে গন ডেপুটুেশানের মূল বিষয় ছিল ক্ষতি গ্রস্থ পুকুর, কৃষি জমির,পান বরজ সরকারি ভাবে ক্ষতিপুরন দেওয়া।অতিবর্ষনে  আবাসন প্রকল্পের নাম তালিকাভুক্তি করা। দুর্গতদের ত্রিপল সঙ্গে পর্যাপ্ত পরিমানে খাবারের ব্যবস্থা করা। প্রতিমাসে ক্ষতিগ্রস্থদের মাথা পিছু ১০টাকা কিলো চাল সঙ্গে ১০০ টাকার ভর্তুকি খাবার দেওয়া। নামখানা ব্কের বিভিন্ন এলাকায় ব্লিচিং পাউডার ও চুনের ব্যবস্থা নেওয়া ।ঘূর্নিঝড়ের পর থেকে একাধিকবার কেঅপরের দোষারব শুরু করেছে বিভিন্ন রাজনৈতিক দল ।সবটাই অভিযোগ তৃনমূল কংগ্রেসের বিরুদ্ধে ।  যদিও তৃনমূলের দাবি রাজনৈতিক কোন কারন নেই । এটা বিরোধী রাজনৈতিক দলের চক্রান্ত । ত্রান নিয়ে কোন সমস্যা নেই বলে অভিযোগ । নামখানার বিডিও ডেপুটেশানে উপস্থিত ছিলেন জেলার সাধারন সম্পাদক শৈবাল রায় , রাজ্য কমিটির কিষান কংগ্রেসের সভাপতি তপন দাস , সম্পাক  সৌরভ ঘোষ , নামখানা ব্লকের সভাপতি পুতুল সামন্ত , সাধারন সম্পাদক  তারক মাইতি, পল্লব মন্ডল । প্রাক্তন জেলা পরিশোধের সদস্য বলাই মিস্ত্রি, প্রাক্তন ব্লক কংগ্রেসের সভাপতি মৃতুঞ্জয় মাঝি, প্রদেশ কংগ্রসের কমিটির সদস্য কৃত্তিবাস সরদার ছিলেন অন্যান্য সর্মথকেরা । এদিন রাজ্য
Loading...

No comments

Powered by Blogger.