ইউরোপীয়ান ইউনিয়নের প্রতিনিধিদের কাশ্মীর সফর ঘিরে বিতর্কের ঝড়

Image result for european union delegation
৩৭০ ধারা বাতিলের পর জম্মু-কাশ্মীরের পরিস্থিতি দেখতে যেখানে ভারতীয় রাজনৈতিক নেতাদের এখনও অনুমতি দেওয়া হয়নি, সেখানে ইউরোপীয় ইউনিয়নের প্রতিনিধিদের কিভাবে যাওয়ার অনুমতি দেওয়া হয়েছে, তা নিয়ে প্রশ্ন তুললেন কংগ্রেস। কংগ্রেস নেতা শশী থারুর ও জয়রাম রমেশ এই ঘটনাকে 'গণতন্ত্রের অপমান' বলে উল্লেখ করেছেন।
কংগ্রেস নেতা জয়রাম রমেশ নিজের ট‍্যুইটারে লেখেন, "জম্মু-কাশ্মীরের মানুষদের সাথে কথা বলার জন্য ভারতীয় রাজনীতিবিদদের আটকানো হয়েছিল। এখন কী কারণে জাতীয়তাবাদের বুক চাপড়ানো চ‍্যাম্পিয়ন ইউরোপীয়ান রাজনীতিবিদদের জম্মু-কাশ্মীরে যাওয়ার অনুমতি দিচ্ছে? এটা সরাসরি ভারতের নিজের সংসদ ও আমাদের গণতন্ত্রের অপমান।"
মঙ্গলবার ইউরোপীয় ইউনিয়নের ২৭ জন প্রতিনিধি জম্মু-কাশ্মীরে যাবেন। ৩৭০ ধারা বাতিল রাজ‍্যের বাসিন্দাদের জীবনে কতটা প্রভাব ফেলেছে তা নিয়ে রাজ‍্যবাসীর সাথে আলোচনা করবেন তাঁরা। গত ৫ই আগস্ট রাজ‍্য থেকে ৩৭০ ধারা তুলে দিয়েছে কেন্দ্র সরকার।
কংগ্রেস নেতা মনীশ তিওয়ারি কটাক্ষ করে লেখেন, "ভারতীয় সাংসদদের জম্মু-কাশ্মীরে যাওয়ার জন্য এবার থেকে সম্ভবত ইউরোপীয়ান সংসদ থেকে নির্বাচিত হতে হবে।"
শুধু কংগ্রেস নয়, ইউরোপীয় ইউনিয়নের প্রতিনিধিদের কাশ্মীর যাওয়া নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন বন্দি PDP নেত্রী মেহবুবা মুফতির মেয়ে। মায়ের ট‍্যুইটার হ‍্যান্ডেল থেকে তিনি লেখেন, "৩৭০ ধারা বাতিল করে যদি জম্মু-কাশ্মীরকে ভারতের অবিচ্ছেদ্য অংশ করা হয়, তাহলে রাহুল গান্ধীকে কেন কাশ্মীরে আসার পথে আটকানো হলো? তার পরিবর্তে অতিরিক্ত ডানপন্থী এবং ফ‍্যাসিবাদী ইউরোপীয় সাংসদদের জম্মু-কাশ্মীরে যাওয়ার অনুমতি দেওয়া হয়েছে। অর্থাৎ আপনি কাশ্মীরে যেতে পারবেন যদি আপনি ফ‍্যাসিবাদি হোন এবং মুসলিমদের অতিরিক্ত ঘৃণা করতে পারেন।"
রাজনীতিবিদদের পাশাপাশি ইউরোপীয় ইউনিয়নের প্রতিনিধিদের এই কাশ্মীর সফরকে সমর্থন করেননি প্রাক্তন কূটনীতিক কে সি সিং সহ অনেকেই।
Loading...

No comments

Powered by Blogger.