বিমান চালানো শিখছেন ৯৩ বছর বয়সী বৃদ্ধা



কথায় বলে- ‘শখের তোলা আশি টাকা’। শখ পূরণে মানুষ কিনা করে।
তেমনি এক দৃষ্টান্ত দেখালেন লন্ডনের এক বৃদ্ধাশ্রমের বাসিন্দা মলি ম্যাকার্টনি।
সবে ৯৩ বছরে পা দিলেন। কিন্তু এই বয়সে বেশ শক্ত তিনি। তাই নিজের জন্মদিনে মলি ম্যাকার্টনির শখ হয়- বিমান নিয়ে উড়বেন আকাশে। মৃত্যুর আগে একবার হলেও বৈমানিক তকমা লাগাতে চান নিজের নামের পাশে। সূত্র: বিবিসি।
শখ পূরণে লন্ডনের একটি বিমানঘাঁটিতে এখন বিমান চালনা শিখছেন মলি।
পাইলটের পাশে বসে কয়েকবার আকাশে উড়েছেনও।
তিনি বলেন, ‘ইংল্যান্ড এত সুন্দর, আকাশে না উড়লে আমি জানতামই না, যে প্রকৃতির ৫০ রকম রূপ।’
এই বয়সে এসে মলির এমন শখ কেন হলো সে বিষয়ে জানা গেছে, রোমাঞ্চকর জীবন বরাবরই পছন্দ মলির। তিনি দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের একজন নৌসেনা।
এ বিষয়ে মলি বলেন, ‘আমি একজন যোদ্ধা। অন্য নারীরা যা জানেন না, তার অনেক কিছুই আমি দেখেছি, উপলব্ধি করেছি।’
বিমান চালানো ইচ্ছাটা কর্মজীবন থেকেই ছিল বলে জানান মলি।
তিনি বলেন, ‘তখন উইমেন্স রয়্যাল নেভাল সার্ভিসে (রেনস) যোগ দিই। সেই সময় নারীরাও পাইলট হতে পারেন তা ভাবনায় ছিল না কারও। পরে পাথ গেজেটের একটি প্রামাণ্যচিত্রে দুই নারী পাইলটকে দেখে চমকে উঠি। সেখানে তাদের ওয়েলিংটন বোমারু বিমান চালাতে দেখি। এটা দেখেই মনে বাসনা জাগে ওরা পারলে আমি পারব না কেন?’
তখনই বৈমানিক হওয়ার সিদ্ধান্ত নেন মলি; কিন্তু নানা ব্যস্ততা ও বিপত্তির কারণে সে ইচ্ছা আর প্রকাশ পায়নি মলির।
এর পর যুদ্ধ শেষে চাকরি চলে যায় মলির। তিনি গৃহকর্মী, নার্স ও শেফ হিসেবে কাজ করে জীবন চালিয়ে নিতে থাকেন। তবু পাইলট হওয়ার নেশা মাথা থেকে কাটেনি কখনও।
কিন্তু এবারের জন্মদিনে নিজের সেই সুপ্ত কামনা পূরণ করেই ছাড়বেন মলি ম্যাকার্টনি।
হবেন বিশ্বের সবচেয়ে বয়সী নারী পাইলট।
Loading...

No comments

Powered by Blogger.