জেনে নিন চুলের আগা ফাটা রোধে উপায়


আপনার চুল বড় হোক বা ছোট, বেশিরভাগ মানুষই চুলের আগা ফাটা সমস্যায় ভুগেন। আর প্রতি দুই সপ্তাহ অন্তর অন্তর চুলের আগা ছাটা অনেক সময়ই সম্ভব হয়ে উঠে না। আপনি যা করতে পারেন তা হলো, চুলের যত্ন নেয়া, বিশেষ করে চুলের আগার।

চুলের মাত্রাতিরিক্ত শুষ্কতার কারণেই এই আগা ফাটা সমস্যা দেখা। এ ছাড়া চুলে বিভিন্ন কেমিক্যাল জাতীয় প্রোডাক্টের ব্যবহার তো রয়েছেই। এর সঙ্গে এখন যুক্ত হয়েছে গরমের তীব্রতা, আর সবটা মিলিয়ে সৃষ্টি হয় চুলের আগা ফাটা। আপনি যদি নিয়মিতই এই সমস্যায় ভুগতে থাকেন, তাহলে সবার আগে স্টাইলিং প্রোডাক্ট আর কেমিক্যাল জাতীয় সবকিছু ব্যবহার বাদ দিন। জেনে নিন চুলে আগা ফাটা রোধ করার সহজ ৫টি উপায়।

১. চুল কাঁটা : চুল ছোট হয়ে যাবে বলে অনেকেই চুল কাঁটতে চান না। কিন্তু জানেন কি নিয়মিত চুল কাঁটলে চুল দ্রুত বড় হয়? এছাড়া চুলের আগা ফাটা রোধ করার অন্যতম পদ্ধতি হলো নিয়মিত চুল কাঁটা।   

২. হট টাওয়েল ট্রিটমেন্ট : চুলের আগা ফাটা রোধ করার পাশাপাশি চুলের কোমলতা ধরে রাখতেও সাহায্য করে এ পদ্ধতি। প্রথমে চুলে ভালো করে তেল লাগান। গরমজলেতে তোয়ালে ভিজিয়ে চিপে নিন। এবার এই তোয়ালে গরম থাকতে থাকতেই পুরো মাথায় জড়িয়ে ফেলুন। দশ মিনিট পর খুলে ফেলুন। এভাবে তিন চারবার করুন। এরপর চুল শ্যাম্পু করে ধুয়ে ফেলুন। 

৩. অলিভ অয়েল : অলিভ অয়েল যে ত্বকের জন্য খুবই উপকারী এটা আমরা সবাই জানি। অলিভ অয়েল চুলের জন্যেও সমান উপকারী। চুলের গোড়ার সাথে সাথে চুলের আগাতেও অলিভ অয়েল প্রয়োগ করুন। চুলের আগা ফাটার পরিমাণ কমে যাবে।

৪. লেবুর রস : লেবুর রসের ব্যবহার নানাভাবে হয়। চুলের যত্নেও তাই। চুলের আগা ফাটা রোধ করতে ব্যবহার করতে পারেন লেবুর রস। লেবুর রসের সাথে সমপরিমাণ জল মেশান। এবার শুধু চুলের আগায় ভালো করে লাগান। বিশ মিনিট রেখে চুল ধুয়ে ফেলুন।                     

৫. চায়ের লিকার : চায়ের ঠান্ডা লিকার কন্ডিশনার হিসেবে খুবই ভালো। চুলের আগা ফাটা প্রতিরোধ করতেও এর জুড়ি নেই। একটি পাত্রে চায়ের লিকার নিয়ে চুলের আগা তাতে ডুবিয়ে রাখুন দশ মিনিট। এরপর চুল ধুয়ে ফেলুন। নিয়মিত ব্যবহারে চুলের আগা ফাটা প্রতিরোধ করবে চায়ের লিকার।

Loading...

No comments

Powered by Blogger.