চিরাচরিত প্রথা মেনে বেলুড় মঠেও করা হল শ্যামামায়ের আরাধনা




    চিরাচরিত প্রথা মেনে বেলুড় মঠেও  শ্যামামায়ের আরাধনা করা হচ্ছে। এই পুজোর শুরু সম্পর্কে বেলুড় মঠের পক্ষ থেকে জানান হয়েছে, অনেক দিন আগের কথা ঠাকুর রামকৃষ্ণ পরমহংসদেব শ্যামপুকুর জয়রামবাটিতে ছিলেন। সেই সময় কালীপুজোর একদিনে সেখানে পৌঁছান স্বামী বিবেকানন্দ। সেখানেই ঠাকুরকে  কালী রূপে পুজো করেন স্বামীজি। তারপর স্বামিজী বেলুড় মঠে তৈরির পরে সেখানে শুরু করেন কালীপুজো। এরপর থেকেই চলে আসছে বেলুড় মঠের শ্যামা পূজা। বছরে ৪ বার কালীপুজো হয়ে থাকে। এই চারদিন হলো ফলহারিনী কালী পুজো, রামকৃষ্ণ পরমহংসদেবের জন্মতিথি, স্বামী বিবেকানন্দের জন্মতিথি এবং দীপান্বিতা অমাবস্যা। এরমধ্যে ফলহারিনী কালী পুজো, রামকৃষ্ণদেবের জন্মতিথি, এবং স্বামীজীর জন্মতিথিতে ঠাকুরের মূর্তিতে পুজো হয়ে থাকে। দীপান্বিতা অমাবস্যায় হয় শ্যামা কালীর মূর্তি পূজা। সারারাত ধরে এখানে চলে এই পুজো। চিরাচরিত প্রথা মেনে ভাবগম্ভীর পরিবেশে এখানে হয়ে থাকে শ্যামা পুজো। এই পুজো উপলক্ষে বেলুড়মঠে প্রচুর ভক্ত সমাগম হয়েছে। বহু দূর-দূরান্ত থেকে এসেছেন ভক্তরা। সকাল থেকেই এখানে ভিড় জমিয়েছেন তারা। এই পুজোয় তারা অংশগ্রহণ করবেন। সারারাত ধরে চলবে বেলুড় মঠের এই পুজো। তবে রাত দশটার পরে মহিলারা এই পুজোয় অংশগ্রহণ করতে পারেন না। শুধুমাত্র ভক্তরাই নয় বহু দূর-দূরান্ত থেকে এখানে আসেন এখানকার পূজা  দর্শন করতে। এই পুজোকে কেন্দ্র করে বহু দূর-দূরান্ত থেকে এসেছেন। ভক্তরা। তাদের নিরাপত্তার জন্য গোটা বেলুড় মঠ নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তায় মোড়কে ঘিরে ফেলা হয়েছে। চারিদিকে রয়েছে পুলিশের টহলদারি। সিসি ক্যামেরার কড়া নজরদারি চলছে চারিদিকে। রয়েছে পুলিশি টহলদারি গাড়ি। দর্শনার্থীদের যাতে পুজো দর্শনে কোন অসুবিধে না হয় তার জন্য সব রকম ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে বলেও বেলুড় মঠ এর পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।
Loading...

No comments

Powered by Blogger.