বেকিং সোডা ক্যান্সার সারাবে


প্রায় সকলেরই রান্নাঘরে রয়েছে বেকিং সোডা। বিশেষ করে কেক তৈরিতে বেকিং সোডা ব্যবহার করা হয়। তবে আপনি জানেন কি? একাধিক স্বাস্থ্য সমস্যার সমাধানে বেকিং সোডা একেবারে অব্যর্থ ওষুধের মতো কাজ করে।
ত্বকের সমস্যা, হৃদরোগ, স্নায়ুবিক সমস্যা এমনকি ক্যান্সারের চিকিত্সার ক্ষেত্রেও বেকিং সোডা ব্যবহার করে সাফল্য মিলেছে।
ইতালির এক চিকিৎসক-গবেষক তুলিও সিমোনসিনির দাবি, বেকিং সোডার প্রয়োগে ক্যান্সারের চিকিত্সা ও নিরাময় সম্ভব। মিলেছে সাফল্যও। তিনি তার ‘ক্যান্সার ইজ অ্যা ফাঙ্গাস: অ্যা রিভল্যুশন ইন টিউমার থেরাপি’ বইয়েও এ কথা উল্লেখ করেছেন। সিমোনসিনির দাবি, ক্যান্সার এক ধরনের ফুসকুড়ি, যা বেকিং সোডার সাহায্যে সহজেই নিরাময় করা সম্ভব।
এ ছাড়া শরীর থেকে দুষিত বর্জ্য বাইরে বের করে শরীরকে ঝরঝরে করে এই সোডা। দিনে অন্তত দুবার এক চামচ বেকিং সোডা এক গ্লাস জলেতে মিশিয়ে খেলে (বিশেষ করে সকালে ও রাতে ঘুমাতে যাওয়ার আগে) সারাদিন শরীর থাকে ঝরঝরে।
পেশিতে টান পড়া, ক্লান্তি ভাব, ত্বকের মরা কোষ থেকে রেহাই পেতে স্নানের সময় জলেতে এক কাপ বেকিং সোডা মিশিয়ে নিন। ওই জলেতে স্নান করলে ত্বক হবে নরম, মসৃণ ও উজ্জ্বল। 
তাছাড়া ভাইরাসের কারণে ত্বকের প্রদাহ বা জ্বালা অনুভূত হলে সামান্য বেকিং সোডা নিয়ে সরাসরি আক্রান্ত স্থানে লাগিয়ে হালকা মালিশ করলে উপকার পা্ওয়া যাবে। 
এছাড়া বমি বমি ভাবের চিকিৎসায়, হৃদরোগ, স্নায়ুবিক সমস্যা, ক্যান্সার ও ফ্লু-এর চিকিৎসায় বেকিং সোডা আর ম্যাগনেসিয়াম ক্লো রাইড একসঙ্গে মিশিয়ে ব্যবহার করা যায়।

Loading...

No comments

Powered by Blogger.