দশেরা উপলক্ষ্যে চন্ডীগড়ে তৈরি হচ্ছে ২২১ ফুট উচ্চতার রাবণ মূর্তি

Image result for chandigarh ravan 2019


বাংলায় যেমন জোর কদমে চলছে দূর্গাপুজোর প্রস্তুতি, তেমনই হিন্দিভাষী রাজ্যগুলিতে শুরু হয়ে গেছে  দশেরার প্রস্তুতি। তাই সর্বত্রই সাজসাজ রব। প্রতিবারের মতো এবারেও বিভিন্ন ধরনের চমক দিতে কোমর বেঁধে তৈরি হচ্ছেন উদ্যোক্তারা।
প্রথা মেনে দশেরার দিন রাবণের মূর্তি পোড়ানো হয়ে থাকে উত্তর ভারতের বিভিন্ন এলাকায়। এই মূর্তি তৈরি নিয়েও বিভিন্ন সংগঠনের মধ্যে প্রতিযোগিতা চলছে। তাতে অনেকটাই এগিয়ে রয়েছে চণ্ডীগড়। এখানে রাবণের যে মূর্তি তৈরি হচ্ছে তার উচ্চতা ২২১ ফুট। এই কুশপুতুল তৈরি করতে উদ্যোক্তাদের খরচ হচ্ছে ৮০ লাখ টাকা। উদ্যোক্তাদের দাবি, তাঁদের তৈরি এই রাবণের মূর্তিই বিশ্বের সবচেয়ে লম্বা। পাঁচ বছর ধরে তাঁরা এই মূর্তি তৈরির চেষ্টা করছেন। শেষ পর্যন্ত এবার তাঁদের সেই চেষ্টা সফল হয়েছে। ২০১৮ সালে তাঁরা ২১০ ফুট উচ্চতা বিশিষ্ট কুশপুতুল তৈরি করেছিলেন। এবার সেই উচ্চতা আরও ১১ ফুট বাড়িয়ে ২২১ ফুট করা হচ্ছে। এবারের এই মূর্তিই বিশ্বের সর্বোচ্চ। এর আগে কোথাও এত বড় মূর্তি তৈরি হয়নি।
Image result for chandigarh ravan 2019


তাঁদের তৈরি রাবণের মূর্তির ওজন ৭০ কুইন্টাল। রাবণের হাতে যে তলোয়ার রয়েছে তার ওজনও প্রায় তিন কুইন্টাল। পায়ে যে জুতো থাকছে তার ওজন প্রায় দু' কুইন্টাল। জনসাধারণের যাতে দেখার সুযোগ পান সে জন্য চণ্ডীগড়ের ধনাসের মাঠে এই কুশপুতুলটি ১ অক্টোবর থেকে ৮ অক্টোবর সন্ধ্যা পর্যন্ত রাখা থাকবে। ৩ থেকে ৭ অক্টোবর পর্যন্ত চলবে নানান সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। ৮ অক্টোবর দশেরার দিন সন্ধ্যায় রাবণ বধ করতে কুশপুতুলে অগ্নিসংযোগ করা হবে। তবে সবচেয়ে বড় রাবণের মূর্তি করলেও উদ্যোক্তারা দূষণের বিষয়টিও মাথায় রেখেছেন। সে কারণেই কুশপুতুলের ভিতর থাকছে দূষণহীন বাজি। এমনকী, অত্যন্ত জোরালো আওয়াজের শব্দবাজিও থাকছে না মূর্তির ভিতর।
Loading...

No comments

Powered by Blogger.