বিড়ালের রয়েছে নিজস্ব ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্ট


ধরুন, কোনো এক অফিসে গিয়েছেন আর সেখানে আপনাকে স্বাগত জানাতে গলায় আইডি কার্ড ঝুলিয়ে বসে আছে কালোমুখো এক বিড়াল, কেমন হবে ব্যাপারটা? অবাক লাগতে পারে! তবে, চোখ কপালে তোলার কিছু নেই। কারণ, ঘটনা সত্য! 
ব্রাজিলের বার অ্যাসোসিয়েশনে (অর্ডার অব অ্যাটোর্নি অব ব্রাজিল) চাকরি করছে এমনই একটি বিড়াল। 
জানা গেছে, ঘটনার শুরু গত ফেব্রুয়ারিতে। একদিন ঝড়ের মধ্যে আশ্রয় খুঁজতে খুঁজতে ব্রাজিলের আমপা প্রদেশের বার অ্যাসোসিয়েশন ভবনে হাজির হয় ছোট্ট বিড়ালটি। তার দুর্দশা দেখে মায়া লেগে যায় ভবনের কর্মীদের। সযত্নে আশ্রয় দেওয়া হয় অসহায় বিড়ালটিকে!
ভালোই যাচ্ছিল দিনকাল। ঝামেলা বাঁধে সপ্তাহখানেক পর। কয়েকজন কর্মী অভিযোগ করেন, বার অ্যাসোসিয়েশনের মতো একটি গুরুত্বপূর্ণ ভবনে বিড়াল আশ্রয় দেওয়া ঠিক হচ্ছে না। এ নিয়ে শুরু নানা আলোচনা। একসময় সমস্যা সমাধানে এগিয়ে আসেন বার অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি। বিড়ালটিকে কেউ যেন আর আশ্রিত না বলতে পারে, সেজন্য তাকে ভবনের কর্মী হিসেবে নিয়োগ দেন সভাপতি। আদর করে বিড়ালটির নাম রাখা হয় ড. লিওন।
এখন ভবনটিতে গেলেই দেখা যাবে, গলায় আইডি কার্ড ঝুলিয়ে দর্শনার্থীদের স্বাগত জানাতে বসে আছে ড. লিওন।
ইনস্টাগ্রামে অসংখ্য ফলোয়ার রয়েছে ড. লিওনের।
শুধু চাকরিই নয়, বিড়ালটির রয়েছে নিজস্ব ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্টও। সেখানে তার ফলোয়ার আছে ৬৮ হাজারেরও বেশি। 

Loading...

No comments

Powered by Blogger.