প্রচলিত অ্যান্টিবায়োটিক কার্যকারিতা হারাচ্ছে

           প্রচলিত অ্যান্টিবায়োটিক কার্যকারিতা হারাচ্ছে


টাইফয়েড রোগের চিকিৎসায় প্রচলিত বেশির ভাগ অ্যান্টিবায়োটিকের কার্যকারিতা কমে গেছে, কোনো কোনোটি কার্যকারিতা হারিয়েছে।  আন্তর্জাতিক উদরাময় গবেষণাকেন্দ্রের এক গবেষণায় বিষয়টি উঠে এসেছে।

বিশেষজ্ঞ ও চিকিৎসকেরা বলেছেন, ‘‘সঠিক মাত্রায় ও সঠিক মানের অ্যান্টিবায়োটিক সেবন না করায় টাইফয়েড ওষুধপ্রতিরোধী হয়ে ওঠে। ফলে অ্যান্টিবায়োটিক কার্যকর হয় না। ওষুধপ্রতিরোধী হয়ে ওঠায় টাইফয়েডের চিকিৎসা ব্যয় ১০ গুণ পর্যন্ত বেড়েছে।

গবেষণায় দেখা গেছে, এসব রোগীর প্রায় ৫১ শতাংশের ক্ষেত্রে তিন ধরনের অ্যান্টিবায়োটিক— বিটাল্যাকটাম, ক্লোরামফেনিকল ও কোট্রাইমোক্সাজল কার্যকারিতা পুরোপুরি হারিয়েছে। ৪৯ শতাংশের ক্ষেত্রে চার ধরনের অ্যান্টিবায়োটিক—বিটাল্যাকটাম, ক্লোরামফেনিকল, কোট্রাইমোক্সাজল ও ন্যালিডিক্সিক এসিড কাজ করছে না। এ ছাড়া সিপ্রোফ্লক্সাসিন ৪ শতাংশের দেহে কাজ করছে না বললেই চলে, ৮৮ শতাংশের ক্ষেত্রে এর কার্যকারিতা ছিল মাঝারি ধরনের।
বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মতে, বিশ্বে প্রতিবছর ২০ লাখ মানুষ টাইফয়েডে আক্রান্ত হয়। এদের ৮৫ থেকে ৯০ শতাংশই দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার। প্রতি বছর এ রোগে মারা যায় দুই লাখ মানুষ। 
Loading...

No comments

Powered by Blogger.