গরীব মুখোশ শিল্পীদের টাকা আত্মসাৎ এর অভিযোগ নাট্যব্যাক্তিত্ব দেবেশ চট্টোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে

মুখোশ বিক্রির টাকা আত্মসাৎ করার অভিযোগ নাট্যব্যক্তিত্ব দেবেশ চট্টোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে। মুখোশ বিক্রির পাওনা টাকা ফেরত চাওয়ায় প্রাণনাশের হুমকিও দেন দেবেশ চট্টোপাধ্যায় বলে অভিযোগ। অবশেষে টাকা পাওয়ার আশায় জেলা আরক্ষাধিক্ষকের দারস্থ দক্ষিণ দিনাজপুরের মহিষবাথান গ্রামীণ হস্তশিল্প সমবায় সমিতি লিমিটেডের সদস্যরা।  দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার হস্তশিল্পের অন্যতম পরিচায়ক কুশমন্ডি ব্লকের মহিষবাথান এলাকার মুখোশ শিল্প। ইতিমধ্যেই এই শিল্প জেলা, রাজ্য তথা দেশের গণ্ডি ছাড়িয়ে বিদেশে পাড়ি জমিয়েছে।  এই মহিষবাথান এলাকার মুখোশ মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জীর উদ্যোগে ইতিমধ্যেই পেয়েছে জি.আই স্বীকৃতিও পেয়েছে । মহিষবাথানের তৈরী মুখোশ শিল্পের সঙ্গে যুক্ত হস্তশিল্পীদের ভাগ্য পরিবর্তন ঘটাতে তথা এই মুখোশ শিল্পের প্রসার ঘটাতে একদা গড়ে উঠে  মহিষবাথান গ্রামীণ হস্ত শিল্প সমবায় সমিতি লিমিটেড নামে একটি সমবায়। কিন্তু মুখোশ বিক্রি করে পাওনা টাকা না পাওয়ায় এই মহিষবাথান গ্রামীণ হস্তশিল্প সমবায় সমিতি লিমিটেড বর্তমানে বিপাকে।

 মহিষবাথান গ্রামীণ হস্ত শিল্প সমবায় সমিতি লিমিটেড-এর সম্পাদক পরেশ চন্দ্র সরকারের অভিযোগ বিগত বছরের নভেম্বর মাসে  এক লক্ষ ৭১ হাজার টাকা মূল্যের কাঠ ও বাশের তৈরী মুখোশ  কলকাতার নাট্যব্যক্তিত্ব দেবেশ চট্টোপাধ্যায় বাকিতে মহিষবাথান গ্রামীণ হস্তশিল্প সমবায় সমিতি লিমিটেড থেকে ক্রয় করেন বালুরঘাট নাট্য উৎকর্ষ কেন্দ্রের সৌন্দর্য্যায়ন কল্পে ব্যবহার করার জন্য।  অভিযোগ সেই সময় নাট্যব্যক্তিত্ব দেবেশ চট্টোপাধ্যায় মহিষবাথান গ্রামীণ হস্তশিল্প সমবায় সমিতি লিমিটেড-এর সদস্যদের জানায় সরকারের কাছ থেকে মুখোশের টাকা পেলে তিনি পাওনা টাকা মিটিয়ে দেবেন। এরপর দীর্ঘ প্রায় ৫ মাস সময় অতিক্রান্ত হয়ে গেলেও সম্প্রতি দিনকয়েক পূর্বে প্রায় ১২ কোটি ৭৫ লক্ষ টাকা ব্যায়ে নির্মিত বালুরঘাট নাট্য উৎকর্ষ কেন্দ্রের উদ্বোধন হয়। এবং উদ্বোধিত হওয়া নাট্য উৎকর্ষ কেন্দ্রে বাশ ও কাঠের তৈরী বিভিন্ন মুখোশ সৌন্দর্য্যায়ন রুপে সজ্জিত হতে দেখা গেলেও যদিও তাদের মুখোশ বিক্রির পাওনা টাকা এখন  পাওনাই রয়ে যায় বলে অভিযোগ ।  এরপর মহিষবাথান গ্রামীণ হস্তশিল্প সমবায় সমিতি লিমিটেডের সদস্যরা জানতে পারে তাদের ঐ মুখোশ বিক্রির টাকা ইতিমধ্যেই সরকারের কাছ থেকে তুলে নিয়েছেন নাট্যব্যক্তিত্ব দেবেশ চট্টোপাধ্যায়। এরপরেই টাকা ফেরত পেতে দক্ষিণ দিনাজপুরের জেলা আরক্ষাধিক্ষকের দারস্থ হয় মহিষবাথান গ্রামীণ হস্তশিল্প সমবায় সমিতি লিমিটেড-এর সম্পাদক। যদিওবা এই বিষয়ে অভিযুক্ত দেবেশ চট্টোপাধ্যায়-এর কোন বক্তব্য যোগাযোগ না করতে পারার কারনে জানা সম্ভব হয়নি।
Bengali Movie Air Hostess

Loading...

No comments

Powered by Blogger.