অভিনন্দনের মেরুদন্ড পাঁজরে আঘাতের চিহ্ন



পাকিস্তানের কারাগারে ৬০ ঘণ্টা বন্দি থাকার পর শুক্রবার ভারতে ফিরেছেন দেশটির বিমানবাহিনীর পাইলট অভিনন্দন বর্তমান। দেশে ফেরার পর থেকেই তিনি রয়েছেন দিল্লির সেনা হাসপাতালে। সেখানে তার বিভিন্ন ধরনের শারীরিক পরীক্ষা করা হচ্ছে।

রোববার দেশটির সরকারি সংবাদ সংস্থার খবরে বলা হয়, অভিনন্দনের দেহের এমআরআই স্ক্যানে দেখা গেছে, অভিনন্দনের মেরুদণ্ডের নিচের অংশে চোট রয়েছে। পাশাপাশি তার পাঁজরে আঘাতের চিহ্ন মিলেছে।

তবে তার শরীরে কোনো ‘বাগ’-এর সন্ধান পাওয়া যায়নি। এ ধরনের ‘বাগ’ বা আড়িপাতার যন্ত্র পাকসেনা অভিনন্দনের দেহ ঢুকিয়ে দিতে পারে বলে আশঙ্কা করছিলেন চিকিৎসকরা।

মেরুদণ্ডে আঘাত লাগার বিষয়ে ধারণা করা হচ্ছে, পাক ফাইটার জেটের গুলিতে অভিনন্দনের মিগ ২১ বাইসনে আগুন লেগে যায়। তখনই তিনি আপতকালীন ‘ইজেক্ট’ করে বাইরে বেরিয়ে আসেন। এ ধরনের ইজেক্টের ফলে মেরুদণ্ডে আঘাত লাগতে পারে।

অন্যদিকে ইজেক্ট করার পর পাক মাটিতে নেমে পড়েন অভিনন্দন। সেখানে তিনি জনগণের হাতে মারধরের শিকার হন। ফলে ওই মারধরের কারণেই পাঁজরে আঘাত হয়েছে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

সূত্রের খবর, আগামী ১০ দিন সেনা হাসপাতালে থাকতে হবে অভিনন্দনকে। এই কয়েক দিন তার বিভিন্ন ধরনের চিকিৎসা ও পরীক্ষা হবে। এ ছাড়া তাকে পাকিস্তান বাহিনী কী ধরনের জেরা করেছে সেসব বিষয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে।

প্রসঙ্গত, পাকিস্তানি সুপারসনিক বিমান এফ-১৬ এর আক্রমণে ভারতীয় পাইলটের নিয়ন্ত্রণে থাকা মিগ ২১ যুদ্ধবিমান বিধ্বস্ত হয়।

এ সময় এফ-১৬ বিমান থেকে ভারতীয় বিমানবাহিনীর পাইলট অভিনন্দন প্যারাসুটের মাধ্যমে নিচে নামতে গিয়ে প্রবল বাতাসে পাকিস্তানের কাশ্মীরে অঞ্চলে নামেন বলে দাবি করে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম। পরে তিনি পাকিস্তানি নিরাপত্তা বাহিনীর হাতে বন্দি হন।

এর পর অভিনন্দনের একটি ভিডিও প্রকাশ করে পাকিস্তানের আইএসপিআর। পরে ভারত সরকার এক বিবৃতিতে তাকে দ্রুত এবং নিরাপদে ফিরিয়ে দেয়ার আহ্বান জানায়।

এ বার্তার পর পাকিস্তানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় প্রথমে জানায়, অভিনন্দনকে ফিরিয়ে দিলে যদি সংঘাত এড়ানো যায়, তা হলে তারা তাকে ফেরত দেবে।

পরে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানও শান্তির বার্তা দিতে পাইলটকে শুক্রবারেই মুক্তি দেয়ার ঘোষণা দেন।
Bengali Movie Air Hostess

Loading...

No comments

Powered by Blogger.