পুলওয়ামায় জঙ্গি হামলায় মৃত ৪২ সিআরপিএফ



গত ২০ বছরের সবচেয়ে বড় জঙ্গিহানায় কেঁপে উঠল কাশ্মীর উপত্যকা। বৃহস্পতিবার পুলওয়ামার অবন্তীপোরায় আত্মঘাতী জঙ্গিহানায় প্রাণ হারালেন ৪২ জন সিআরপিএফ জওয়ান,আহত প্রায় ৪০ জন। এই ঘটনার ভয়াবহতা ছাপিয়ে গেল উরির হামলাকেও।

সেনা সূত্রে খবর, জওয়ান কে নিয়ে জম্মু থেকে শ্রীনগরের পথে যাচ্ছিল সেনার ৭৮ টি গাড়ির কনভয়। দুপুর সাড়ে তিনটে নাগাদ জম্মু-শ্রীনগর জাতীয় সড়ক দিয়ে যাবার সময়ে প্রায় ৩৫০ কেজি আইডি বিস্ফোরক ভর্তি একটি স্করপিও গাড়ি ধাক্কা মারে সামনে থাকা সেনার দুটি গাড়িতে। প্রবল বিস্ফোরণে ছিন্নভিন্ন হয়ে যায় সেনা জওয়ানদের দেহ। বিস্ফোরণের পর মৃত্যু নিশ্চিত করতে গ্রেনেড ও গুলিবর্ষণ করে গাড়ি দুটি ঝাঁঝরা করে দেয় জঙ্গিরা।
এই ভয়াবহ নাশকতার দায় স্বীকার করেছে পাকিস্তান মদতপুষ্ট জঙ্গী সংগঠন জইশ-ই- মহম্মদ। বিবৃতি প্রকাশ করে তারা দাবি করেছে ,আদিল আহমেদ নামের এক জঙ্গীই বিস্ফোরক ভর্তি ওই গাড়িটি চালাচ্ছিল। এই জঙ্গীর বাড়ি পুলওয়ামাতেই।
সূত্রের খবর ৮-১০ দিন আগেই কাশ্মীরে ভয়াবহ আইইডি বিস্ফোরণ হতে পারে বলে সেনাকে সতর্ক করেছিল ইন্টেলিজেন্স ব্যুরো। তাছাড়াও ওই এলাকাটি ছিল কঠোর নিরাপত্তায় মোড়া। নিরাপত্তায় মোতায়েন ছিল সিআরপি, পুলিশ ও আধা সেনা। এত কিছুর পরও কেন এড়ানো গেল না এই প্রাণঘাতী হামলা? কাদের গাফিলতিতে এই জওয়ানদের প্রাণ দিতে হল? এমনই প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে।
বিদেশ মন্ত্রকের তরফ থেকে বিবৃতি প্রকাশ করে এই হামলার জন্য পাকিস্তানকে দায়ী করা হয়েছে। সেই বিবৃতিতে বলা হয়েছে, জইশ-ঈ-মহম্মদ প্রধান মাসুদ আজহারকে সম্পূর্ণ মদত করে পাকিস্তান। আজ অর্থাৎ শুক্রবার ঘটনাস্থলে যাচ্ছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিং।
Bengali Movie Air Hostess

Loading...

No comments

Powered by Blogger.