বিয়ের কার্ডে বিভিন্ন হেল্প লাইনের নম্বর দিয়ে সচেতনতার অভিনব বার্তা



বিশ্বদীপ নন্দী, বালুরঘাট - বিয়ের কার্ডকে পাত্র পাত্রীর পরিচয় এবং নিমন্ত্রণের জন্যই ব্যাবহার হয়। নিজে বিয়ের কার্ডকেও সমাজ সচেতনতার কাজে যে ব্যাবহার করার যায় সেই অভিনব কাজ করল এক পাত্র। বিয়ের আমন্ত্রণ পত্রে অভিনব আয়োজন করল অর্জুন মন্ডল। শুক্রবার বংশীহারী ব্লকের শ্যামপুরের বাসিন্দা অর্জুন মন্ডলের সাথে বুনিয়াদপুরের বাসিন্দা শর্মিষ্ঠা সরকারের বিয়ে। বিয়ে উপলক্ষ্যে দু’পক্ষের মধ্যে ব্যাপক উন্মাদনার সৃষ্টি হয়েছে। কিন্তু সে উন্মাদনা আরও  একশোগুন বাড়িয়ে দিয়েছে একটি বিয়ের কার্ড। পাত্র পক্ষের বিয়ের কার্ডে একাধিক সামাজিক বার্তা। "রক্তদান জীবন দান" থেকে শুরু করে "গাছ লাগান প্রাণ বাঁচান", সবটাই লেখা আছে এই কার্ডে।  শুধুই কি তাই, বিয়ের দিন, তারিখ, স্থানের পাশাপাশি লেখা আছে চাইল্ডলাইন, ওমেন হেল্পলাইন, সিনিয়ার সিটিজেন হেল্পলাইনের মতো একাধিক আপদকালীন নম্বর। অনেকেই বলছেন, বিয়ের কার্ডের পাশাপাশি এটি একটি বিপদবন্ধু কার্ডও বটে । আর এসবের নেপথ্যে স্বয়ং পাত্র।

এবিষয়ে পাত্র অর্জুন মন্ডল বলেন, আমাদের গ্রাম গঞ্জের দিকে অনেক ধরনের সচেতনতার অভাব আছে। সরকারি-বেসরকারি নানা তরফে মানুষ কে সচেতন করার চেষ্টা চালানো হচ্ছে। আমিও ঠিক একই ভাবনায় আমার বিয়ের কার্ডটিকে একটু অন্যভাবে করার চেষ্টা করেছি। অর্জুনবাবুর এমন উদ্যোগকে সাধুবাদ জানিয়েছেন অনেকেই।

এবিষয়ে সমাজকর্মী দেবাশীষ সরকার জানান, মানুষের চিন্তা-ভাবনার দিনদিন পরিবর্তন হচ্ছে। কিছুটা খারাপ হলেও ভালোর দিকটাও হচ্ছে। এমন উদ্যোগ সত্যিই অভিনব। আত্মীয় স্বজনদের যেমন আমন্ত্রিত করা গেলো তেমন ভাবে সমাজ সচেতনতা বার্তাও ছড়িয়ে দেওয়া সম্ভব হল সবার মধ্যে। আগামীদিনে আরও বেশী বেশী করে এইসব ভাবনার উদ্ভব হোক চান দেবাশীষবাবু।
 ছেলের বিয়েতে কোনো রকম উপঢৌকন গ্রহণ করা হবে না বলে জানিয়েছেন অর্জুন বাবুর বাবা মহাদেব মন্ডল।
Bengali Movie Air Hostess

Loading...

No comments

Powered by Blogger.