লক্ষাধিক টাকা পাইয়ে দেওয়ার টোপ দিয়ে প্রতারনা







রেখা রায়, উত্তর দিনাজপুর :  শ্রমিকদের একটি কেন্দ্রীয় প্রকল্পের মাধ্যমে লক্ষ লক্ষ টাকা পাইয়ে দেওয়ার টোপ দেওয়ার অভিযোগকে ঘিরে সরগরম উত্তর দিনাজপুর জেলার  গোয়ালপোখর ব্লক।সম্প্রতি একটি চক্র সক্রিয় হয়ে ওঠে সেখানে। কেন্দ্রীয় সরকারের 'গরিবী হঠাও' এই প্রকল্পের মাধ্যমে দুঃস্থ শ্রমিকদের পনেরো লক্ষ টাকা পাইয়ে দেওয়ার প্রলোভন দেখানো হয় এবং তাদের কাছ থেকে ব্যাংকের পাস বই,, ভোটার কার্ড, আধার কার্ড সহ বিভিন্ন প্রয়োজনীয় তথ্য সংগ্রহ করা হয়। আর এর পরেই একটি রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকের পান্জিপারা শাখা থেকে বেশ কয়েকজনের টাকা উধাও হয়ে যায় বলে অভিযোগ উঠেছে। গ্রাহক তথা এলাকার বাসিন্দাদের মধ্যে এই ঘটনার তীব্র চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। এলাকায় গোয়ালপুকুর এলাকায় বিপ্লব মন্ডল নামে শ্রমদপ্তর এর একজন অস্থায়ী কর্মী এই কাজের সঙ্গে যুক্ত রয়েছে বলে অভিযোগ করে এলাকার বাসিন্দারা জানিয়েছেন। তাদের বক্তব্য, বিপ্লব মন্ডল এর অধীনে প্রায় দুইশ ছয় জনকে নিয়ে একটি টিম আছে। সেটিতে কেউ সুপারভাইজার  আবার কেউ হেল্পার হিসেবে নিযুক্ত হয়েছেন। এই কাজের জন্য তারাই গ্রামে গ্রামে ঘুরে শ্রমিকদের কাছ থেকে বিভিন্ন কাগজপত্র সংগ্রহ করছেন এবং খুব শীঘ্রই কেন্দ্রীয় সরকারের ওই প্রকল্পের মাধ্যমে পনেরো লক্ষ টাকা তাদেরকে দেওয়ার আশ্বাস দেওয়া হয়েছে। সংশ্লিষ্ট বিষয়টিকে কেন্দ্র করে এলাকার বাসিন্দাদের মধ্যে বিস্তর অভিযোগ উঠে এসেছে। তারা জানান, যারা সুপারভাইজার এবং হেল্পার হিসেবে কাজ করছিল তারাও অনেকের কাছ থেকেই এই প্রকল্পের সুযোগ পাইয়ে দিবে বলে অতিরিক্ত টাকা আদায় করে। পাঞ্জীপাড়ার বাসিন্দা জানি আলম জানান, তিনি ওই সমস্ত কাগজপত্র জমা দিয়েছেন তাদের কাছে। তবে এ বিষয়ে তার যথেষ্ট সংশয় রয়েছে এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে তিনি অভিযোগ জানাবেন বলেও জানিয়েছেন। যার বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠে এসেছে সেই বিপ্লব মণ্ডল জানান, তিনি ওই কেন্দ্রীয় প্রকল্পে কাজ করার জন্য আবেদন করেছিলেন। কিন্তু তার কাছে এখনো পর্যন্ত কোনো কাগজপত্র এসে পৌঁছায়নি। তিনি বিষয়টি আগে থেকেই গুছিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করেছিলেন বলেই তিনি এ কাজটি শুরু করে দিয়েছিলেন। যদিও গোয়াল পুকুরের বিডিও রাজু শেরপা  এই মুহুর্তেই এই কাজ বন্ধ করে দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন।


Loading...

No comments

Powered by Blogger.