দাড়িভিটে গুলিতে আহত বিপ্লব মাধ্যমিক পরীক্ষার্থী



রেখা রায়, উত্তর দিনাজপুর :পরীক্ষা কেন্দ্রের সামনেই কান্নায় ভেঙে পড়লেন উত্তর দিনাজপুর জেলার ইসলামপুর দাড়িভিটে গুলিতে আহত বিপ্লব সরকারের মা সরস্বতী সরকার। বললেন, "কষ্টের মধ্যে থেকেও আমার ছেলে পরীক্ষা দিতে পারছে দেখে খুব ভালো লাগছে।"
এখনও গুলির ক্ষতর সাথে বিপ্লবের লড়াই শেষ হয়নি। পরীক্ষা শেষেই ফের অস্ত্রপচার হবে তাঁর পায়ে। এদিন পরীক্ষা শুরুর আগেই বিপ্লব বলেছিল, "অনেক অসুবিধা গেল আমার উপর দিয়ে, যেরকম ভেবেছিলাম, সেরকম নাই। আমার সাথে এমন ঘটনা না ঘটলে পরীক্ষাটা ভালোই হত।" বিপ্লবের আশঙ্কাই এদিন সত্যি হলো।
পরীক্ষা শেষে বিপ্লবের দাবী, বন্ধুদের সহযোগিতা পেলেও "যেরকম আমি ভেবেছিলাম তার থেকে আমার পরীক্ষাটা খারাপই হয়েছে। এর থেকেও ভালো দিতে চেয়েছিলাম পরীক্ষা। তবে পরীক্ষা দিতে পেরে ভালো লাগছে।"
বিপ্লবের মা সরস্বতী দেবী এদিন পরীক্ষা কেন্দ্রের সামনেই কান্নায় ভেঙে পড়েন। ছেলে পরীক্ষা কেন্দ্র থেকে তাঁকে জড়িয়ে ধরেন। বলেন, "কষ্টের মধ্যে থেকেও আমার ছেলে পরীক্ষা দিতে পারছে দেখে খুব ভালো লাগছে।"
প্রসঙ্গতঃ শিক্ষক নিয়োগ নিয়ে ইসলামপুরের দাড়িভিট হাইস্কুলে উত্তেজনা ছড়ায় বেশ কয়েকমাস আগে। ঘটনায় গুলিবিদ্ধ হন তিন পড়ুয়া। রাজেশ সরকার, তাপস বর্মন নামে দুই পড়ুয়ার গুলিবিদ্ধ হয়ে মৃত্যু হলেও অল্পের জন্য প্রাণে বেঁচে যান অপর গুলিবিদ্ধ পড়ুয়া বিপ্লব সরকার। অসুস্থতাকে সাথে নিয়েই আজ থেকে মাধ্যমিক পরীক্ষায় বসছে সে।
Loading...

No comments

Powered by Blogger.