দিল্লি মালদা এক্সপ্রেস ট্রেনের কামরা থেকে উদ্ধার শতাধিক কচ্ছপ




মালদা :সোমবার সকালে গোপন সূত্রে অভিযান চালিয়ে মালদাগামী দিল্লি মালদা এক্সপ্রেস ট্রেনের একটি কামরা থেকে শতাধিক কচ্ছপ উদ্ধার করল আরপিএফ।  এই ঘটনায় দুই পাচারকারীকে গ্রেপ্তার করেছে মালদা টাউন স্টেশনের আরপিএফের কর্তারা।  পাশাপাশি কচ্ছপগুলি  ফরেস্টে পাঠানোর জন্য বনদপ্তরকে খবর দেওয়া হয়েছে বলে আরপিএফের তরফ থেকে জানানো হয়েছে।

আরপিএফ সূত্রে জানা গিয়েছে,  ৫৫০টি কচ্ছপ উদ্ধার হয়েছে।  গ্রেফতার করা হয়েছে নাথু রাম এবং বাবলু রাম নামে দুই ব্যক্তিকে । তাদের বাড়ি উত্তরপ্রদেশের সুলতানগঞ্জ এলাকায় । এদিন দিল্লি- মালদা এক্সপ্রেস ট্রেনের জেনারেল কামরা ১২টি বস্তায় ওই কচ্ছপগুলি বন্দী করে নিয়ে আসা হচ্ছিল । ওই অসংরক্ষিত কামরার  শৌচাগারের কাছেই বস্তাগুলি জড়ো করে রাখা ছিল।  আরপিএফের কাছে পাচারের  বিষয়ে গোপন সূত্রে একটি খবর আসে।  তারপরে ওই ট্রেনটি সকালে মালদা টাউন স্টেশনে এসে পৌঁছাতেই বিভিন্ন কামরায় তল্লাশি শুরু করা হয়।

আরপিএফ জানিয়েছে,  তল্লাশির পর ট্রেনের জেনারেল কামরা শৌচাগারের কাছ থেকেই সন্দেহ জনক অবস্থায় ১২ টি বস্তা পড়ে থাকতে দেখা যায়। সেগুলির মুখ খুলতেই উদ্ধার হয় কচ্ছপগুলি।  এই ঘটনায় ওই কামরা থেকে নাথু রাম এবং বাবলু রাম নামে দুইজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে । তবে এদের সঙ্গে আরও বেশকিছু পাচারকারী ছিল বলেও আশঙ্কা করছে অভিযানকারী অফিসারেরা।  কিন্তু অভিযানের সময় অন্যান্য পাচারকারীরা এলাকা থেকে পালিয়ে যেতে সক্ষম হয় বলে অনুমান আরপিএফের।

এদিন কচ্ছপ উদ্ধারের ঘটনার পর ঘটনাস্থলে তদারকিতে আছেন পূর্ব রেলের মালদা ডিআরএম তনু চন্দ্রা সহ আরপিএফের উচ্চপদস্থ কর্তারা। মালদা টাউন স্টেশন এর আরপিএফ ইনস্পেক্টর নিরাজ কুমার জানিয়েছেন,  এএসআই সুকদেব সিংয়ের নেতৃত্বে দিল্লি -মালদা এক্সপ্রেস ট্রেনে অভিযান চালিয়ে ৫৫০ টি কচ্ছপ উদ্ধার হয়েছে।  এই ঘটনায় দু'জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।  উদ্ধার হওয়া কচ্ছপগুলো সুরক্ষিতভাবে বনদপ্তর হাতে তুলে দেওয়ার ব্যবস্থা করা হচ্ছে।  তবে এগুলি দক্ষিণদিনাজপুরের  বালুরঘাট , গঙ্গারামপুরে পাচার করার কথা জানিয়েছে ধৃতেরা।  সেখান থেকে হয়তো এগুলি বাইরে চালান করা হতো বলেও জানিয়েছে ধৃতেরা।  পুরো বিষয়টি নিয়ে তদন্ত শুরু করা হয়েছে।
Loading...
Powered by Blogger.