দুদিনের ধর্মঘটে ভোগান্তির আশঙ্কা রাজ্যবাসীর





লাগাতার ৪৮ ঘন্টার ধর্মঘট। দুদিনের ধর্মঘটে ভোগান্তির আশঙ্কা রাজ্যবাসীর। যদিও প্রশাসনের তরফে কড়া হাতে বনধ মোকাবিলা করার হুঁশিয়ারি দিয়েছে। তাতেও আশঙ্কা কাটছে না সাধারণ মানুষের। কারণ সেদিন বহু পড়ুয়ার পরীক্ষা রয়েছে। ইতিমধ্যে এই ধর্মঘটে সামিল হয়েছে ওলা, উবরও। বনধকে সমর্থন জানিয়েছে বিদ্যুৎ কর্মী থেকে সাফাই কর্মীরাও। সব মিলিয়ে বনধের দুদিন চরমে উঠতে পারে সমস্যা।এদিকে সর্বস্তরে বনধ রোখার হুঁশিয়ারি দিয়েছে রাজ্য সরকার। সেই মতো পুলিশ-প্রশাসনকে কড়া ব্যবস্থা নেওয়ার জন্যে ইতিমধ্যে নির্দেশ দিয়েছে মমতা সরকার। যদিও পালটা প্রত্যাঘাতের হুঁশিয়ারি দিয়েছেন সিপিএম নেতা সূর্যকান্ত মিশ্র। নিজেদের দাবি থেকে না সরার হুঁশিয়ারি কর্মী সংগঠনগুলিরও।
সাংবাদিক সম্মেলন করে সংগঠনের তরফে সমস্ত ছোট এবং ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদের দোকান বন্ধ রাখার আবেদন জানানো হয়েছে। একই সঙ্গে বিদ্যুৎ কর্মী এবং জঞ্জাল সাফাই কর্মীদের এই ধর্মঘটে সামিল হওয়ার আহ্বান জানানো হয়েছে।
সূর্যকান্ত মিশ্র মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে কটাক্ষ করে আরও জানিয়েছেন, বিজেপি দুর্বল হলে উনি(মমতা) দুর্বল হবেন। উনি জানেন। উনি দুর্বল হলে বিজেপি দুর্বল হবে। আর এই কারণে তৃণমূল সরকার ধর্মঘট নিয়ে এত উদ্বিগ্ন। বিএমএস এবং আইএনটিটিইউসি এই কারণে ধর্মঘটে নেই। যদিও এই ধর্মঘটে নীচু তলার কর্মীরা সামিল হয়েছে বলে করেছেন বর্ষীয়ান এই সিপিএম নেতা।
সাংবাদিক সম্মেলন করে সংগঠনের তরফে সমস্ত ছোট এবং ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদের দোকান বন্ধ রাখার আবেদন জানানো হয়েছে। একই সঙ্গে বিদ্যুৎ কর্মী এবং জঞ্জাল সাফাই কর্মীদের এই ধর্মঘটে সামিল হওয়ার আহ্বান জানানো হয়েছে।সূর্যকান্ত মিশ্র মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে কটাক্ষ করে আরও জানিয়েছেন, বিজেপি দুর্বল হলে উনি(মমতা) দুর্বল হবেন। উনি জানেন। উনি দুর্বল হলে বিজেপি দুর্বল হবে। আর এই কারণে তৃণমূল সরকার ধর্মঘট নিয়ে এত উদ্বিগ্ন। বিএমএস এবং আইএনটিটিইউসি এই কারণে ধর্মঘটে নেই। যদিও এই ধর্মঘটে নীচু তলার কর্মীরা সামিল হয়েছে বলে করেছেন বর্ষীয়ান এই সিপিএম নেতা।
Loading...
Powered by Blogger.