গোবরের চিপ! রেডিয়েশন থেকে মুক্তি


গোবর দিয়ে তৈরি এক বিশেষ ধরনের 'চিপ' যা মোবাইলের পেছনে লাগিয়ে নিলেই মুক্তি । মোবাইল ফোনের টাওয়ার থেকে নির্গত রেডিয়ো ফ্রিকোয়েন্সি রেডিয়েশন থেকে মিলবে মুক্তি ৷  কয়েকবছর আগে থেকেই একই রকম দাবি করে আসছে রাষ্ট্রীয় স্বয়ং সেবক সংঘ(RSS)-এর শাখা সংগঠন অখিল ভারতীয় গো-সেবা৷ খেরওয়াল বলেন, ‘‘দেখুন মোবাইল ব্যবহার করার ফলে আমাদের শরীরে রেডিয়েশনের প্রভাবে অনেকরকম ক্ষতি হচ্ছে৷ ক্যান্সারের মত রোগ হতে পারে মোবাইলের রেডিয়েশনের প্রভাবে ৷ গোবর খুব উপরকারি ৷ তবে তা অবশ্যই দেশি গো-মাতার গোবর হতে হবে৷ এরকম গোবরে নানা রকম রোগ নিরাময় ক্ষমতা রয়েছে৷ দেশি গাইয়ের গোবর দিয়েই আমরা এই মোবাইল চিপ বানিয়েছি যা ব্যবহার করে মোবাইল রেডিয়েশনের হাত থেকে বাঁচা যাবে৷’’
বছরের প্রায় প্রতিদিনই কলকাতা ও শহরতলিতে পাওয়া যাবে এই চিপ। এই চিপ কি তারা নিজেরা বানান? এই প্রশ্নের উত্তরে গো-সেবা পরিবারের আধিকারিক সুনীল খেরওয়াল বলেন, "দেখুন এই চিপ বানানো খুব একটা কঠিন নয়। এখানেও বানাতে পারি আমরা। কিন্তু এখন আমরা চিপ ছত্তিশগড় থেকে নিয়ে আসি। কারণ এখনও লোকে এটা সম্পর্কে খুব বেশি কিছু জানে না। চাহিদাও খুব বেশি নয়। তবে লোকে এটার সম্পর্কে জেনে গেলে এবং চাহিদা বাড়লে আমরা কলকাতায় এরকম চিপ বানাবো।

গোবর দিয়ে বানানো শুধু চিপই নয় প্রদীপ, রিস্ট ব্যান্ড প্রভৃতি বিক্রি করছে কলকাতার গো-সেবা সমিতি৷ হার্টশেপড, সাধারণ প্রদীপ শেপ এবং ফুল শেপের মতো বেশ কয়েকটি ডিজাইনেই পাওয়া যাবে এই প্রদীপ। তবে এটাও জানা যায় সাধারণ প্রদীপের মতোই ব্যবহার করা যাবে এই প্রদীপগুলি। গরুর গোবর দিয়ে তৈরি এই প্রদীপ সম্পূর্ণ জ্বলে গিয়ে দূষণ করবে সবচেয়ে কম৷ তবে এই প্রদীপ বা চিপ কিনতে হলে আপনাকে যোগাযোগ করতে হবে সুনীল খেরওয়ালের সঙ্গেই, কারণ প্রদীপগুলি গো-সেবা পরিবারের তরফে আগ্রহী ক্রেতাদের সরাসরি বিক্রি করা হয়।

প্রযুক্তিবিদ্যার গবেষক এবং অধ্যাপিকা শুচিস্মিতা মাইতি অবশ্য পুরো বিষয়টি নিয়ে ধন্ধে রয়েছেন। তিনি বলেন, "গোবর দিয়ে তৈরি এই চিপের ব্যবহার করে মোবাইল টাওয়ার থেকে নির্গত ইলেক্ট্রোম্যাগনেটিক রে-এর ক্ষতিকারক প্রভাব থেকে বাঁচা যায় কিনা তা আমার জানা নেই৷ যারা এটা বিক্রি করছেন বা এ ধরনের দাবি করছেন তারা কিন্তু কিভাবে এটা কাজ করে সেটা বলেননি। হয়ত পুরো বিষয়টিই অযৌক্তিক। কিংবা সত্যিই গোবরের মাধ্যমে কিছুটা হলেও আটকে দেওয়া যায় ইলেক্ট্রোম্যাগনেটিক রে। কিন্তু এ বিষয়ে গবেষণা না করে কিছু বলা সম্ভব নয়। এটি এমন একটি বিষয় যেটা নিয়ে খুব বেশি গবেষণা হয়নি।
Loading...
Powered by Blogger.