রক্ষী-জুনিয়র ডাক্তারদের বচসা! বন্ধ চিকিৎসা , বিপাকে রোগীরা




নিজস্ব প্রতিনিধি, মালদা‌ঃ আবার জুনিয়র চিকিৎসক ও নিরাপত্তারক্ষীদের মধ্যে বর্ষাকে ঘিরে উত্তেজনা ছড়ালো মালদা মেডিকেল কলেজে। শুক্রবার রাত থেকেই ঘটনার প্রতিবাদে দুপক্ষই একে অপরের বিরুদ্ধে অভিযোগ পাল্টা অভিযোগ তুলে কাজ বন্ধ করে দিয়েছেন। পরিস্থিতি উত্তপ্ত হওয়ায় হাসপাতাল চত্বরে মোতায়েন করা হয়েছে পুলিশ। হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে এদিন মহিলা মেডিসিন বিভাগে হৃদরোগে আক্রান্ত ফরিদা বিবি নামে এক মহিলাকে ভর্তি করান পরিবারের লোকেরা। ফরিদা হাসপাতালে এর এক নিরাপত্তারক্ষী মোহাম্মদ আনোয়ার শেখের আত্মীয়। মেডিকেলে সঠিক চিকিৎসা হচ্ছে না, এই অভিযোগে ফরিদাকে সেখান থেকে একটি বেসরকারি নার্সিংহোমে নিয়ে যেতে চান তার পরিবারের লোকেরা। সেই সময়ই ট্রিটমেন্ট সিটের ছবি মোবাইলে তুলতে যান আনোয়ার বলে অভিযোগ। তাতে বাধা দেন কর্তব্যরত জুনিয়র চিকিৎসক নজরুল মোল্লা। তখনই দু'পক্ষের মধ্যে শুরু হয় বচসা। অভিযোগ এই সময় ই আনোয়ার সহ অন্যান্য নিরাপত্তারক্ষীরা নজরুল মোল্লা ও এক মহিলা চিকিৎসক কে ওয়ার্ড এর ভেতরেই আটকে রাখেন এমনকি চিকিৎসকদের সঙ্গে অভব্য আচরণ করেন বলে অভিযোগ। এ ঘটনার প্রতিবাদে কাজ বন্ধ করে দেন জুনিয়র চিকিৎসকরা। নজরুল বলেন হাসপাতালে নিয়ম অনুযায়ী ট্রিটমেন্ট সিটের ছবি তোলা যায় না তাই আমি নিষেধ করেছিলাম। অন্যদিকে রোগীর আত্মীয়দের অভিযোগ, হাসপাতালে ভর্তি রোগীর ঠিকমতো চিকিৎসা না হওয়ায় তাকে অন্যত্র নিয়ে যেতে চেয়েছিলেন তারা তাতেই ডাক্তাররা গালাগালি দেওয়া শুরু করেন। এই ঘটনায় বিপাকে পড়েছেন মালদা মেডিকেল কলেজে ভর্তি বহু রোগী ও তার আত্মীয়রা। মেডিকেল কলেজ কর্তৃপক্ষ আলোচনার মাধ্যমে দ্রুত সমস্যা সমাধানের চেষ্টা করছেন বলে জানা গেছে।
Loading...
Powered by Blogger.