৩ বছর পর ভারতে টুর্নামেন্ট খেলতে নেমেই বাজিমাত নীরজের

৩ বছর পর ভারতে টুর্নামেন্ট খেলতে নেমেই বাজিমাত নীরজের

এই মুহূর্তে ভারত তো বটেই বিশ্বের অন্যতম সেরা জ্যাভলার নীরজ চোপড়া। নবীন এই ভারতীয় তারকাকে ঘিরে প্যারিস অলিম্পিক্সের পদকের প্রত্যাশায় চড়ছে পারদ। এমন আবহে তিনি গেমসের প্রস্তুতি একেবারে মাঠে নেমে শুরু করে দিয়েছেন। কয়েকদিন আগেই তিনি দোহা ডায়মন্ড লিগে খেলতে নেমেছিলেন। সেখানে ৮৮.৩৬ মিটার ছুঁড়ে তিনি জিতেছিলেন রুপো।এরপরেই আজ অর্থাৎ বুধবার তিনি নামেন ভারতের ওড়িশা রাজ্যে একটি টুর্নামেন্টে। ভারতে তিন বছর পরে খেলতে নামেন তিনি। নেমেই এই টুর্নামেন্টে বাজিমাত করেছেন তিনি। প্রত্যাশা মতো জিতে নিয়েছেন সোনা। তবে সোনা জিতলেও নীরজ চোপড়া কিন্তু তাঁর সেরা পারফরম্যান্সের ধারে কাছে ছিলেন না। ফলে প্যারিস অলিম্পিক গেমসের আগে তা কিছুটা হলেও চিন্তায় রাখবে ভক্তদের।

আসন্ন প্যারিস অলিম্পিক গেমসে যে যে ক্রীড়াবিদ ভারতের হয়ে পদক আনবেন বলে আশা করছেন ভক্তরা তাদের অন্যতম নিঃসন্দেহে নীরজ চোপড়া। ভারতের এই জ্যাভলার এই মুহূর্তে অলিম্পিক চ্যাম্পিয়ন হওয়ার পাশাপাশি বিশ্ব চ্যাম্পিয়নও বটে। অলিম্পিকে ট্র্যাক অ্যান্ড ফিল্ডে ভারতের ইতিহাসে তাঁর হাত ধরেই প্রথম সোনা পেয়েছিল ভারতের টোকিয়ো গেমসে। টোকিয়ো অলিম্পিক্সে সোনা জয়ের পর এই প্রথমবার ভারতের মাটিতে খেলতে নেমেছিলেন নীরজ চোপড়া। এতদিন বিদেশের মাটিতে খেললেও ভারতে খেলা হয়নি তাঁর। যে টুর্নামেন্টে তিনি খেলেন এদিন তা কোনও আন্তর্জাতিক প্রতিযোগিতা ছিল না।‌তবে গেমসের প্রস্তুতি সারতে নেমেছিলেন নীরজ। এদিন ফেডারেশন কাপে খেলতে নেমেছিলেন তিনি।

নীরজ সেখানে প্রত্যাশা মত সোনা জিতলেন। জিতলেন খুব সহজেই। তবে তাঁর পারফরম্যান্স কিন্তু আশানুরূপ ছিল না। প্যারিস গেমসের আগে ভক্তদের চিন্তা বাড়াবে এই পারফরম্যান্স। নীরজ চোপড়াকে পুরনো ছন্দের আশেপাশেও দেখা যায়নি এদিন। ফেডারেশন কাপে সোনা জিতলেও তাঁর লক্ষ্য ৯০ মিটার দূরত্ব পার করতে পারলেন না নীরজ। বলা যায় লক্ষ্য থেকে এদিন অনেকটাই দূরে ছিলেন তিনি। এদিন তিনি সোনা জিতলেন মাত্র ৮২.২৭ মিটার দূরে জ্যাভলিন ছুঁড়ে।

বুধবার পশ্চিমবঙ্গের প্রতিবেশি রাজ্য ওড়িশার কলিঙ্গ স্টেডিয়ামে বসেছিল ফেডারেশন কাপের আসর। সেখানেই জ্যাভলিনে সোনা জিতেছেন নীরজ চোপড়া। এদিন শুরুটা ভালো হয়নি নীরজের। প্রথম তিন রাউন্ডের শেষে নীরজ ছিলেন দ্বিতীয় স্থানে। তখন শীর্ষে ছিলেন ডিপি মনু। তিনি ছোড়েন ৮২.০৬ মিটার দূরত্ব । কিন্তু পরের তিনটি থ্রোয়ে তিনি আর বেশিদূর ছুঁড়তে পারেননি। নীরজ চতুর্থ রাউন্ডে ছোড়েন ৮২.২৭ মিটার। পরের দু’টি থ্রো তিনি আর ছোড়েননি। এদিন তৃতীয় হয়েছেন বিবিন অ্যান্টনি। তিনি মাত্র ৭৭.২৭ মিটার ছুড়েছেন। তবে এদিন তাঁর পারফরম্যান্সে হতাশ করেছেন কিশোর জেনা। তিনি মাত্র ৭৫.৪৯ মিটারের বেশি ছুড়তে পারেননি। প্রসঙ্গত নীরজের সঙ্গে প্যারিস অলিম্পিক্সের জন্য ইতিমধ্যেই যোগ্যতা অর্জন করেছেন জেনা। কিন্তু ফেড কাপে তিনি তিনটি থ্রো ফাউল করেন। তিনি দোহা ডায়মন্ড লিগেও খেলেছিলেন। সেখানে জেনা মাত্র ৭৬.৩১ মিটার দূরত্ব ছুঁড়েছিলেন। শেষ করেছিলেন নবম স্থানে। সোনা‌ জয়ের পরে নীরজ জানিয়েছেন, ‘টোকিয়ো অলিম্পিক্সের আগে এখানে (ওড়িশাতে) এসেছিলাম। এখানে সবাই খুব সাহায্য করেছেন।অনুশীলনের সুবিধা খুব ভালো। ভালো লাগছে এখানে ফিরে আসতে পেরে। আরো ভালো লাগছে এখানে সকলের আশীর্বাদ পেয়েছি বলে।’

Sports