৩৭ পেরিয়েও অবিবাহিত! সদ্যোজাত কোলে পিসি সরকার-কন্যা মুমতাজ

৩৭ পেরিয়েও অবিবাহিত! সদ্যোজাত কোলে পিসি সরকার-কন্যা মুমতাজ

পিসি সরকারের মেয়ে তিনি। তবে বাবার দেখানো পথ ধরে ম্যাজিকের দুনিয়াতে নয়, মুমতাজ সরকার পরিচিতি গড়েছেন অভিনেত্রী হিসেবে। বাংলাদেশের পপ শিল্পী মেহরিনের মিউজিক ভিডিয়োতে কাজের মাধ্যমে তাঁর কর্মজীবন শুরু করেন তিনি। এবার পরিচয় করালেন বাড়িতে আসা সদ্যোজাতটির সঙ্গে।

মুমতাজের বাড়ির এই খুদের নাম শেনাপতি। ছবিতে শোনাপতিকে জড়িয়ে ধরে আদর আর চুমু খেতে দেখা গেল মুমতাজকে। অভিনেত্রী ক্যাপশনে লিখলেন, ‘সরকার পরিবারের নতুন সদস্যের সঙ্গে পরিচয় করিয়ে দিচ্ছি, ‘শেনাপতি সরকার’। আমাদের এই আনন্দের বান্ডিলটি উপহার দেওয়ার মাত্র ১৫ দিন হয়েছে, এবং ইতিমধ্যেই মনে হচ্ছে তিনি বছরের পর বছর ধরে আমাদের সঙ্গে আছেন। ভুলেও তার সিধেসাধা মুখের দিকে তাকিয়ে ওকে শান্ত ভাববেন না, ও একটি দস্যু।’

মমতাজের পোষ্য প্রেম কিছু নতুন নয়। শুধু সারমেয় নয়, মুমতাজের আছে একটি পোষা কাঠবিড়ালিও। সেটির নাম রাখা হয়েছে সুরসুরি সরকার।

পিসি সরকার জুনিয়রের ছোট মেয়ে মুমতাজ মডেল ও অভিনেত্রী হিসেবে তাঁর কেরিয়ার শুরু করেন। বিরসা দাশগুপ্ত পরিচালিত ‘০৩৩’ ছবির মাধ্যমে পরিচিতি পান। ‘০৩৩’-এর পর মুমতাজ ‘ভূতের ভবিষ্যত’, ‘অশ্চর্য প্রদীপ’, ‘মেঘে ঢাকা তারা’, ‘কাঞ্চনজঙ্ঘা এক্সপ্রেস’ এবং ‘ডার্ক চকোলেট’-এর মতো ছবিতে অভিনয় করেন। বাংলা ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রির পাশাপাশি মমতাজ তামিল ও তেলেগু ছবিতেও কাজ করেছেন।

বলিউডেও অভিষেক হয় তার। সালা খড়ুস ছবিতে তিনি আর মাধবনের সঙ্গে স্ক্রিন শেয়ার করেছেন। ‘সালা খড়ুস’ এরপর তামিল ভাষায়ও তৈরি হয়েছিল, এবং মুমতাজ ‘ইরুধি সুত্রু’ নামের সেই ছবিটিতেও অভিনয় করেছিলেন।

তাঁকে ‘সাবাশ মিঠু’ -তে প্রাক্তন ভারতীয় ক্রিকেট খেলোয়াড় ঝুলন গোস্বামীর দ্বারা অনুপ্রাণিত চরিত্রে অভিনয় করতে দেখা গেছে। ছবিটি ভারতের মহিলা জাতীয় ক্রিকেট দলের প্রাক্তন টেস্ট ও ওডিআই অধিনায়ক মিতালি রাজের উপর ভিত্তি করে নির্মিত হয়েছিল। এটি পরিচালনা করেছিলেন বিশিষ্ট বাঙালি পরিচালক সৃজিত মুখোপাধ্যায়। ‘সাবাশ মিঠু’ ছবিতে মুমতাজ বলিউড অভিনেত্রী তাপসী পান্নুর সঙ্গে অভিনয় করেন।

West Bengal World