সেশেলসের নীল জলে দুর্নিবার-মোহরের একান্তযাপন, গায়ে বিকিনি!

সেশেলসের নীল জলে দুর্নিবার-মোহরের একান্তযাপন, গায়ে বিকিনি!

ইনস্টাগ্রামে কিছু চোখ ধাঁধাঁনো ছবি শেয়ার করলেন গায়ক দুর্নিবার সাহার স্ত্রী মোহর ওরফে ঐন্দ্রিলা সেনের। দেখা গেল সমুদ্রের পাড়ে একান্তযাপনে ব্যস্ত দুজনে। গায়ে জড়ানো বিকিনি। ছুটি কাটাতে চলে গিয়েছিলেন নীল চলে ভেসে থাকা সেশেলসে। ভারত মহাসাগরের বুকে ১৫০টি ছোট ছোট দ্বীপ নিয়ে তৈরি হয়েছে এই দেশ। বর্তমানে অন্যতম জনপ্রিয় পর্যটন কেন্দ্র এটি। সমুদ্রপ্রেমীদের কাছে এর চাহিদা মারাত্মক। আর এখানেই ছুটি কাটানোর ছবি এল দুর্নিবার আর মোহরের থেকে।

প্রথম ছবিতে সমুদ্রপাড়ে থাকা সুইমিং পুলের দিকে মুখ করে দাঁড়িয়ে মোহর। ছবিটি তোলা হয়েছে পিছন থেকে। পরের ছবিতে একটি হ্যামকে তিনি শুয়ে আছেন, গায়ে কালো বিকিনি। তৃতীয় ছবিতে এসে দেখা পাওয়া গেল দুর্নিবারের। পরের ছবিতে সমুদ্রস্নান কর্তা-গিন্নির। এখানে মোহরকে দেখা গেল ফ্লুরোসেন্ট বিকিনি গায়ে। পরের ছবিটিতে মোহরের পরনে নীল রঙের কোঅর্ড সেট। এরপরে আরও কিছু ছবি শেয়ার করে নিয়েছেন তিনি নিজের আর দুর্নিবারের।

মাত্র ২ মাসের সন্তানকে রেখেই কি ঘুরতে গিয়েছিলেন তাঁরা? কমেন্টে প্রশ্ন রাখেন নেটনাগরিকরা। তবে, গায়ক-পত্নীর ইনস্টাগ্রাম ক্যাপশন একটু ভালো করে পড়লেই বোঝা যাবে সবটা। এই ছবি তাঁদের হানিমুনের। গিয়েছিলেন গত বছরই। ছবিগুলি এক বছর আগে ক্যামেরাবন্দি করা। এতদিনে তা সামনে আনলেন।

২০২৩ সালের মার্চ মাসে মোহর আর দুর্নিবার বিয়ে করেছিলেন। তবে দ্বিতীয় বিয়ে করায় কম কটাক্ষ শুনতে হয়নি গায়ককে। মোহরও বিনোদন দুনিয়ার চেনা মুখ, পেশায় তিনি অভিনেতা প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়ের জনসংযোগ আধিকারিক। প্রথম স্ত্রীকে বিচ্ছেদ দেওয়ার বছরখানেকের মধ্যে বিয়ে করায়, হয়েছিলে কুৎসিত কটাক্ষ। একপ্রকার নিজেদের সামাজিক মাধ্যম থেকে সরিয়েই নিয়েছিলেন তাঁরা। সমস্ত রকম নেতিবাচকতা থেকে দূরে থাকতেই ছিল সেই সিদ্ধান্ত।

চলতি বছরের ৪ ফেব্রুয়ারি পুত্র সন্তানের জন্ম দিয়েছেন মোহর। ছেলের অবয়বের সঙ্গে পরিচয় করালেও, সন্তানের মুখ দেখাননি দম্পতি। আপাতত খুদেকে দেখার অপেক্ষায় গায়কের ভক্তরা।

প্রসঙ্গত, ২০১৭ সালে মীনাক্ষী মুখোপাধ্যায়ের সঙ্গে আইনি বিয়ে হয়েছিল দুর্নিবার। তারপর একসঙ্গে ঘরও করছিলেন দুজন। ঘটা করে সামাজিক বিয়ে হয় ২০২২ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে। তবে বছর ঘোরার আগেই ভেঙে যায় সম্পর্ক।

Entertainment