‘সুদীপ ঘনিষ্ঠ’ কাউন্সিলরের বাড়ি সহ ১০ জায়গায় IT হানা! উদ্ধার কোটি টাকা

‘সুদীপ ঘনিষ্ঠ’ কাউন্সিলরের বাড়ি সহ ১০ জায়গায় IT হানা! উদ্ধার কোটি টাকা

লোকসভা নির্বাচনের ৪টি দফার ভোটগ্রহণ সম্পন্ন হয়েছে। আগামী সপ্তাহে আরও দুই দফা ভোট হওয়ার কথা। এরপর ১ জুন ভোট আছে কলকাতা সহ দক্ষিণবঙ্গের একাধিক আসনে। এর আগে আজ শহরজুড়ে ১০টি জায়গায় তল্লাশি চালিয়ে ১ কোটি টাকা উদ্ধার করেছে আয়কর দফতর। কলকাতার হোর্ডিং ব্যবসায়ীদের অফিসে এই অভিযান চালানো হয়েছিল। সেখান থেকেই এই বিপুল পরিমাণ নগদ অর্থ উদ্ধার হয়। এদিকে সকাল সকাল টাকা উদ্ধার করেও থেমে থাকেনি আয়কর দফতর। এরই মধ্যে কলকাতা পুরসভার ৯ নম্বর ওয়ার্ডের তৃণমূল কাউন্সিলর মিতালি সাহার বাড়িতেও হানা দেন আয়কর দফতরের আধিকারিকরা। এই মিতালি সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায় ঘনিষ্ঠ হিসেবে পরিচিত।

জানা যায়, কলকাতায় তিনটি হোর্ডিং ব্যবসায়ীর আয়কর সংক্রান্ত গরমিল চোখে এসেছিল আধিকারিকদের। এর পরিপ্রেক্ষিতে তাদের অফিসে হানা দেন অফিসাররা। সেই তল্লাশির সময়ই বান্ডিল বান্ডিল নগদ টাকা উদ্ধার করেন আয়কর আধিকারিকরা। কী কারণে এত বিপুল পরিমাণ অর্থ নগদে অফিসে রাখা ছিল, তা নিয়ে ধন্দ তৈরি হয়েছে। রিপোর্ট অনুযায়ী, ধর্মলতায় অবস্থিত একটি অফিস থেকে ৫০ লাখ টাকা উদ্ধার হয়েছিল। অন্য একটি অফিস থেকে আরও ৫০ লাখ টাকা নগদ উদ্ধার হয়েছে।

এদিকে আজ সকালে কুমোরটুলির কাছে মদনমোহন স্ট্রিটে মিতালির বাড়িতে পৌঁছে গিয়েছিলেন আয়কর আধিকারিকরা। তাঁর বাড়ির নীচে একটি বিজ্ঞাপন সংস্থার অফিস রয়েছে বলে জানা গিয়েছে। আয়কর আধিকারিকরা সেখানেই তল্লাশি চালান। তবে রিপোর্টে দাবি করা হয়, মিতালির বাড়িতেও নাকি তল্লাশি চালানো হয়েছে। অবশ্য, মিতালির সঙ্গে নীচের বিজ্ঞাপনদাতার অফিসের কোনও যোগ আছে কি না, তা স্পষ্ট নয়। এছাড়াও আজ আনন্দপুর, আলিপুর সহ একাধিক জায়গায় আজ হানা দিয়েছিলেন আয়কর আধিকারিকরা।

এদিকে এই আয়কর হানা নিয়ে তৃণমূল মুখপাত্র তথা কলাকাতা পুরসভার ৯৮ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর অরূপ চক্রবর্তী বলেন, ‘এই আয়কর হানা আদতে ফ্রেন্ড রিকোয়েস্ট।’ তাপস রায়ের বাড়িতে কেন্দ্রীয় তদন্তকারীদের হানার প্রসঙ্গ টেনে অরূপ বলেন, ‘এভাবে অভিযান চালিয়ে ফ্রেন্ড রিকোয়েস্ট পাঠানোর পর তা গ্রহণ করলে তাপস রায় হবেন। আর তা নাকচ করলে অরবিন্দ কেজরিওয়াল হবেন।’ তৃণমূলের অভিযোগ, উত্তর কলকাতা কেন্দ্রে সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায়কে যেনতেন প্রকারে হারানোর জন্যেই কেন্দ্রীয় এজেন্সিকে ব্যবহার করছে কেন্দ্রের বিজেপি সরকার।

Politics West Bengal